kalerkantho


জাজিরায় গলা কেটে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শরীয়তপুরের জাজিরায় হালিমা আক্তার (২০) নামের এক কলেজছাত্রী ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার সেনেরচর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। পরিবার ও স্থানীয়দের দাবি, হালিমা মানসিক রোগী ছিল। তবে এ ঘটনায় তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জাজিরা থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সেনেরচরের ছোট কেষ্ণনগর গ্রামের মসজিদের ইমাম মোবারক মোল্লার মেয়ে হালিমা। মাদারীপুরের নুরুল আমিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে গত বছর এইচএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হন তিনি। এবারও পরীক্ষা দেওয়ার প্রস্তুতি নেন। তবে মানসিক অসুস্থতার কারণে গত কয়েক দিন ধরে হালিমা অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছিলেন। ঠিকমতো খাবারও খেতেন না। শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে হঠাৎ করেই ছুরি দিয়ে নিজের গলা কাটার চেষ্টা করেন হালিমা। টের পেয়ে তাঁর ছোট বোন চিৎকার দিলে বাবা মোবারক মোল্লা ও মা শুকুরজান বিবি রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েকে জায়নামাজের ওপর পড়ে থাকতে দেখেন। হাসপাতালে নেওয়ার পথেই হালিমা মারা যান। পরে স্থানীয় লোকজন জাজিরা থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় জাজিরা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

নিহতের বাবা মোবারক মোল্লা বলেন, “হালিমা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিল। কারো সঙ্গে তেমন কোনো কথা বলত না। বিভিন্ন ধরনের অসংলগ্ন কথা বলত। অনেক সময় বলত, ‘আমাকে নিতে হাসান-হোসেন আসছে, আমি কারবালায় শহীদ হব।’ তাকে অনেক চেষ্টা করেও চিকিৎপ করাতে পারিনি।” জাজিরা থানার ওসি) মো. এনামুল হক বলেন, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে বিষয়টি আত্মহত্যা। তবে এ বিষয়ে আরো তদন্ত চলছে।



মন্তব্য