kalerkantho


আরো সীমান্ত হাট বসাতে বাংলাদেশও ভারত সম্মত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বাংলাদেশ ও ভারত স্থানীয় দাবি বিবেচনা করে দুই দেশের অভিন্ন সীমান্তে আরো বেশিসংখ্যক সীমান্ত হাট বসাতে নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছে। রাজধানীর একটি হোটেলে বৃহস্পতিবার সমাপ্ত দুই দিনব্যাপী বাংলাদেশ-ভারতের সচিব পর্যায়ের এক বৈঠকে আলোচনার পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বৈঠকে ১৮ সদস্যবিশিষ্ট বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন বাণিজ্যসচিব শুভাশীষ বসু এবং ভারতের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন দেশটির বাণিজ্যসচিব রিতা তিওতিয়া।

এর আগে ২০১৬ সালের নভেম্বরে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে দুই দেশের মধ্যে সর্বশেষ বাণিজ্যসচিব পর্যায়ের বৈঠক হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বর্তমানে চালু থাকা চারটি সীমান্ত হাটের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈঠকে আগামী ছয় মাসের মধ্যে আরো ছয়টি সীমান্ত হাট বসানোর প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকটি অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ ও গঠনমূলক পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দুই দেশের মধ্যে বিরাজমান বর্তমান পরিস্থিতি এবং বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা বিবেচনা করে ভারত দুই দেশের মধ্যে সার্বিক অর্থনৈতিক অংশীদারি গঠনের প্রস্তাব দিয়েছে।

উভয় পক্ষ বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে অবস্থিত স্থলবন্দরগুলোতে দ্রুত মালামাল খালাস নিশ্চিত করার পাশাপাশি পর্যায়ক্রমে বন্দরগুলোর অবকাঠামো উন্নয়ন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে সম্মত হয়। এ ছাড়া ভারতীয় পক্ষের অনুরোধে বাংলাদেশ পক্ষ জানায় যে বাংলাদেশের স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের আরো রপ্তানিযোগ্য পণ্য অনুমোদনের প্রস্তাব নিরীক্ষাধীন রয়েছে।

বাংলাদেশ তৃতীয় দেশে পণ্য রপ্তানিতে ভারতের বিমানবন্দর ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছে। উভয় পক্ষ দুই দেশের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদার করার মাধ্যমে একটি বাণিজ্যবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে সিইওজি ফোরাম গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সূত্র : বাসস।


মন্তব্য