kalerkantho


ঢাবিতে আন্দোলন-হামলা

মামলার প্রতিবাদে আবারও কর্মসূচি তদন্তে দুই কমিটি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি থেকে সাত কলেজকে বাতিলের আন্দোলনে হামলার ঘটনা খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরকে অবরুদ্ধ করে রাখা ও ফটক ভাঙচুরের ঘটনায় তিন সদস্যের আরেকটি কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। একই ঘটনায় অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনকে আসামি করে শাহবাগ থানায় মামলাও দায়ের করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা কামরুল আহসান খান বাদী হয়ে মামলাটি করেন। মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন লাখ টাকার সম্পদের ক্ষতি হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। ওই মামলার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এবং গতকাল শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। সেখানে ‘আমি অজ্ঞাতনামা আমাকে গ্রেপ্তার করুন, আমি হামলাকারী আমাকে গ্রেপ্তার করুন’—লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে তারা অবস্থান করে।

প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানী মামলা ও তদন্ত কমিটির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘অজ্ঞাত হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সাধারণ কোনো শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মামলা হয়নি।’

অধিভুক্তি থেকে সাত কলেজকে বাতিলের আন্দোলনে হামলার ঘটনায় রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদাকে আহ্বায়ক, সিনেট সদস্য অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দারকে সদস্য ও সহকারী প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক আবু হোসেন মোহাম্মদ আহসানকে সদস্যসচিব করা হয়েছে। প্রক্টরকে অবরুদ্ধ করে রাখা, গালাগাল করা ও কলাভবনের কলাপসিবল গেট ভাঙার ঘটনা খতিয়ে দেখতে গঠিত কমিটিতে সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক মাকসুদুর রহমানকে আহ্বায়ক, পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেনকে সদস্য ও সহকারী প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক এ কে লুৎফুল কবিরকে সদস্যসচিব করা হয়েছে।

জানতে চাইলে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, ‘হামলা-ভাঙচুরের অভিযোগে অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে মামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনা দেখা দেয়। গভীর রাতে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে। গতকালও রাজু ভাস্কর্যের সামনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করে।



মন্তব্য