kalerkantho


কর্মবিরতি ভেঙেছে খুলনার দুই পাটকলের শ্রমিকরা

এখনো বন্ধ ছয় জুটমিল

খুলনা অফিস   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



পাটকল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমঝোতা হওয়ায় তিন সপ্তাহের কর্মবিরতি থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার কাজে ফিরেছে খুলনা অঞ্চলের দুটি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের শ্রমিকরা। বকেয়া বেতনের দাবিতে রাষ্ট্রায়ত্ত আটটি পাটকলের শ্রমিকরা গত ২৮ ডিসেম্বর থেকে কর্মবিরতিসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে।

স্থানীয় রাজনীতিক, মিলের শ্রমিক নেতা ও কর্মকর্তাদের মধ্যে আলোচনায় সমঝোতা হওয়ায় গতকাল চালু হয় খালিশপুর ও দৌলতপুর জুটমিল। অন্যদিকে ইস্টার্ন, আলিম, ক্রিসেন্ট, স্টার, প্লাটিনাম ও যশোর জেজেআই জুটমিলের শ্রমিকদের কর্মবিরতি অব্যাহত রয়েছে।

খালিশপুর ও দৌলতপুর মিলের শ্রমিক ও কর্মকর্তারা জানান, এ দুটি মিলের প্রতিটির পাঁচ সপ্তাহের মজুরি বকেয়া ছিল। আন্দোলন চলাকালে দৌলতপুর মিলের শ্রমিকদের তিন সপ্তাহের বকেয়া পরিশোধ করা হয়। সংকট সমাধানের জন্য গতকাল খালিশপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম সানাউল্যা নান্নু, আওয়ামী লীগ নেতা জিয়াউল আলম খোকন, বাংলাদেশ জুটমিল করপোরেশনের (বিজেএমসি) খুলনা জোনের সমন্বয়কারী গাজী শাহাদাত হোসেন, দৌলতপুর জুটমিলের প্রকল্প প্রধান মো. সাজ্জাদ হোসেন ও খালিশপুর জুটমিলের প্রকল্পপ্রধান মো. শফিকুল ইসলাম দুই মিলের শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। বৈঠকে বকেয়া প্রদানের ব্যাপারে সমঝোতা হওয়ায় দৌলতপুর মিলের শ্রমিকরা গতকাল সকাল ১০টায় ও খালিশপুর মিলের শ্রমিকরা দুপুর ২টায় কাজে যোগ দেয়।

দৌলতপুর মিলের প্রকল্পপ্রধান সাজ্জাদ জানান, শ্রমিকদের সঙ্গে সমঝোতা হওয়ায় গতকাল প্রায় সাড়ে ৫০০ শ্রমিকের দুই সপ্তাহের বকেয়া মুজরি পরিশোধ করা হয়েছে। মিলে উৎপাদন শুরু হয়েছে।

অন্যদিকে খালিশপুর মিলের বকেয়া পাঁচ সপ্তাহের মজুরির মধ্যে গতকাল দুই সপ্তাহের মজুরি দেওয়া হয়। আগামী সপ্তাহে বাকি মজুরি পরিশোধের আশ্বাস পেয়ে শ্রমিকরা কাজে যোগ দেয়। মিলের প্রকল্প প্রধান শফিকুল বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বন্ধ থাকা যশোর জেজেআই মিলে ১১ সপ্তাহের, আলিম, ক্রিসেন্ট ও প্লাটিনাম জুটমিলের প্রতিটিতে আট সপ্তাহের, ইস্টার্ন মিলে ছয় সপ্তাহের এবং স্টার মিলে পাঁচ সপ্তাহের মজুরি বকেয়া রয়েছে।



মন্তব্য