kalerkantho


খুলনা আধুনিক রেলস্টেশন

তৃতীয় দফা বাড়ল প্রকল্পের মেয়াদ

খুলনা অফিস   

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



খুলনাবাসীর বহু প্রত্যাশিত আধুনিক রেলস্টেশন নির্মাণকাজের সময়সীমা তৃতীয়বারের মতো বাড়ানো হয়েছে। এবারের সময় অনুযায়ী আগামী জুনে প্রকল্পটি হস্তান্তরের কথা রয়েছে। ২০১৫ সালের এপ্রিলে শুরু হওয়া প্রকল্পের কাজ ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে শেষ হওয়ার কথা ছিল। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, প্রকল্পের জমি থেকে দোকানপাট ও স্থাপনা উচ্ছেদের মতো কিছু কাজ করতে গিয়ে নির্মাণকাজ বিলম্বিত হয়েছে।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের আন্দোলনের পর ২০০৭ সালে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার খুলনা রেলস্টেশন আধুনিকায়নের উদ্যোগ নেয়। ২০১৪ সালের ২৬ জানুয়ারি প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন পায়। ২০১৫ সালের ৪ মার্চ ঠিকাদার নিয়োগ সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন দেয় সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। ওই বছরেরই এপ্রিলে এর কাজ শুরু হয়। রেলস্টেশনটি নির্মিত হবে উন্নত বিশ্বের আদলে। প্রকল্পের আওতায় থাকবে প্ল্যাটফর্ম লিংকসহ কার পার্কিং এলাকা, ফুটপাতসহ রাস্তা, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, বাউন্ডারি ওয়াল, স্যানিটারি ও প্লাম্বিং ওয়ার্কস, অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা, পিএবিএ চ্যানেল, বৈদ্যুতিক সংযোগ ও ফুলের বাগান।

নকশা অনুযায়ী খুলনা-যশোর মহাসড়কের পাশেই হবে স্টেশনের প্রধান গেট। এ ছাড়া সাতটি রেললাইন হবে। রেলস্টেশনের তিনটি প্ল্যাটফর্ম এবং তিনতলা স্টেশন ভবন হবে। ভবনের আকার হবে দৈর্ঘ্যে ৪৮ ও প্রস্থে ৪৫ মিটার। প্রতিটি প্ল্যাটফর্মের দৈর্ঘ্য হবে এক হাজার ২০০ ফুট ও প্রস্থ ৩০ ফুট। এতে ব্যয় হবে ৫৫ কোটি ৯৯ লাখ টাকা, যা পরবর্তী সময়ে আরো চার কোটি টাকা বাড়ানো হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে তমা কনস্ট্রাকশন। নির্মাণাধীন এ রেলস্টেশনের মূল ভবনের কাজ প্রায় ৯৫ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। তবে তিনটি প্ল্যাটফর্মের কাজ এখনো অনেক বাকি। গত ডিসেম্বরে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হলেও তৃতীয় দফায় আগামী জুন পর্যন্ত এর সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। ওই মাসেই প্রকল্পটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করার কথা রয়েছে। এর মধ্যে মূল ভবনের কাজ শেষ হবে আগামী মার্চে।



মন্তব্য