kalerkantho


রুপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলা

ষষ্ঠ দফায় চারজনের সাক্ষ্য গ্রহণ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী রুপা খাতুনকে গণধর্ষণ ও হত্যার মামলায় ষষ্ঠ দফায় ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকসহ চারজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক আবুল মনসুর মিয়া এ সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

গতকাল সাক্ষ্য দেন ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক সাইদুর রহমান, সুরতহাল প্রতিবেদনের সাক্ষী কিশোর, মান্নান ও জব্দ তালিকার সাক্ষী মো. আব্দুল হান্নান। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান আজাদ, অ্যাডভোকেট এস আকবর খান ও অ্যাডভোকেট এম এ করিম মিয়া। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট শামীম চৌধুরী দয়াল ও অ্যাডভোকেট মো. দেলোয়ার হোসেন।

গত ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে রুপাকে চলন্ত বাসে ধর্ষণ করে পরিবহন শ্রমিকরা। বাসেই তাকে হত্যার পর মধুপুর উপজেলায় পঁচিশমাইল এলাকায় বনের মধ্যে রুপার মরদেহ ফেলে রেখে যায়। পরদিন ময়নাতদন্ত শেষে রুপার মরদেহ বেওয়ারিশ হিসেবে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়। পত্রিকায় প্রকাশিত ছবি দেখে তার ভাই হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় গিয়ে ছবির ভিত্তিতে তাকে শনাক্ত করেন। পরে ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ময়মনসিংহ-বগুড়া সড়কে চলাচলকারী ছোঁয়া পরিবহনের চালক হাবিবুর, সুপারভাইজার সফর আলী, চালকের সহকারী শামীম, আকরাম ও জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারা প্রত্যেকেই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।



মন্তব্য