kalerkantho


নিজাম হাজারীর মামলার শুনানিতে আবারও বিব্রত হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর পদে থাকা নিয়ে রুল নিষ্পত্তির জন্য গঠিত হাইকোর্টের একক বেঞ্চ শুনানিতে আবারও বিব্রত বোধ করেছেন। কয়েকটি একক বেঞ্চ ঘুরে মামলাটি গতকাল সোমবার বিচারপতি ফরিদ আহমেদের একক বেঞ্চে শুনানির জন্য আসে।

বিচারক তা শুনতে বিব্রত বোধ করায় মামলার নথি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। নিয়ম অনুযায়ী কোনো মামলায় আদালত বিব্রত হলে মামলাটি নিষ্পত্তির জন্য প্রধান বিচারপতির দপ্তরে পাঠানো হয়। এরপর প্রধান বিচারপতি অন্য বেঞ্চ গঠন করেন।

এর আগে গত বছর ২৮ নভেম্বর বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও ১২ নভেম্বর বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার একক বেঞ্চ বিব্রত হন। এরও আগে বেশ কয়েকটি বেঞ্চ বিব্রত হয়েছেন। এ ছাড়া একবার হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছিলেন রিট আবেদনকারী ফেনীর যুবলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া।

নিজাম হাজারীর কারাভোগ নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে ২০১৪ সালে ‘সাজা কম খেটেই বেরিয়ে যান সাংসদ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদন যুক্ত করে রিট আবেদন দাখিল করা হয়। অস্ত্র মামলায় সাজা কম খাটার অভিযোগ এনে নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া। এ রিট আবেদনে ২০১৪ সালের ৮ জুন হাইকোর্ট এক আদেশে ফেনী-২ আসন কেন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। এই রুলের ওপর শুনানি শেষে বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ গত বছর ৬ ডিসেম্বর দ্বিধাবিভক্ত রায় দেন। রায়ে বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকা অবৈধ ঘোষণা করেন। আর কনিষ্ঠ বিচারপতি সংসদ সদস্য পদে থাকা বৈধ ঘোষণা করেন। দ্বিধাবিভক্ত রায় দেওয়ায় বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য হাইকোর্টের একক বেঞ্চ গঠন করেন প্রধান বিচারপতি।



মন্তব্য