kalerkantho


বৈরী শীত

শিশুদের মধ্যে নিউমোনিয়ার চেয়ে বেশি ছড়াচ্ছে ব্রংকিউলাইটিস

তৌফিক মারুফ   

১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শীত মৌসুমে দেশে শিশুদের মধ্যে নিউমোনিয়া ও ব্রংকিউলাইটিস রোগের প্রাদুর্ভাব বেশি দেখা যায়। প্রকৃতির বৈরী আচরণে এ রোগের প্রকোপ দিনে দিনে বাড়ছে। আগে থেকেই বাংলাদেশ নিউমোনিয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে। প্রতিবছর দেশে প্রায় ৫০ হাজার শিশুর মৃত্যু হয় এই রোগে। বর্তমানে নিউমোনিয়ার মতো উপসর্গ নিয়ে বাড়ছে ব্রংকিউলাইটিস। দুই বছরের কম বয়সী শিশুরা নিউমোনিয়ার চেয়ে বেশি সংক্রমিত হচ্ছে এ রোগে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভাইরাসজনিত এ রোগের প্রতিষেধক এখনো চালু হয়নি। আবার সব চিকিৎসক সময়মতো এ রোগ শনাক্তও করতে পারেন না। ফলে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তাঁরা নিউমোনিয়ার চিকিৎসা দিয়ে থাকেন। এমনকি অনেকে অ্যান্টিবায়োটিক পর্যন্ত দেন, যাতে করে উল্টো শিশুর আরো ক্ষতি হয়। প্রাথমিকভাবে ব্রংকিউলাইটিস শনাক্ত করা গেলে তেমন কোনো ওষুধ ছাড়াই সাধারণত দুই-তিন দিনে এই রোগ ভালো হয়ে যায়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুম সূত্র জানায়, গত বছর ১ নভেম্বর থেকে চলতি ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত তাদের কাছে শ্বাসতন্ত্রের রোগে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য এসেছে ১১ হাজার ৮৬ জনের। এটি পুরো দেশের চিত্র নয়। এর মধ্যে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে কতজন নিউমেনিয়ায় আক্রান্ত, আর কতজন ব্রংকিউলাইটিসের রোগী তা আলাদা করে জানা যায়নি।

শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মো. রুহুল আমিন কালের কণ্ঠকে বলেন, এবার শীতে নিউমোনিয়ার পাশাপাশি অনেক বেশিসংখ্যক ব্রংকিউলাইটিসের রোগী পাওয়া যাচ্ছে। সাধারণত ছয় মাস থেকে এক বছর বয়সের শিশুদের মধ্যে এ রোগের প্রকোপ বেশি। যদিও দুই বছর পর্যন্ত শিশুদেরও এই রোগ হতে পারে। নিউমোনিয়া ও ব্রংকিউলাইটিসের মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে, নিউমোনিয়ায় সর্দি-কাশির সঙ্গে তীব্র জ্বর হয়। ব্রংকিউলাইটিসে সাধারণত জ্বর কম থাকে বা থাকে না, তবে সর্দি-কাশি শ্বাসকষ্ট থাকে। এ ক্ষেত্রে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো অনেক বেশি কার্যকর।

তিনি আরো বলেন, ‘বিভিন্ন কারণে নিউমোনিয়া হতে পারে। কোনোটি ভাইরাসজনিত আবার কোনোটি জীবাণুবাহিত। এর মধ্যে আমাদের দেশে সব নিউমোনিয়ার প্রতিষেধক এখনো আসেনি। ২০১৫ সাল থেকে জাতীয় টিকাদান কার্যক্রমের আওতায় নিউমোনিয়ার সবচেয়ে কার্যকর প্রতিষেধক নিউমোকক্কাল কনজুগেট ভ্যাকসিন (পিসিভি) চালু করা হয়েছে। এরই মধ্যে এর সুফল পাওয়া যাচ্ছে। বর্তমানে শিশুদের মধ্যে নিউমোনিয়ার প্রকোপ কম দেখা যাচ্ছে। তবে ব্রংকিউলাইটিসের ভ্যাকসিন এখনো আসেনি।’


মন্তব্য