kalerkantho


নীলফামারীতে ১৮ হাজার খুদে কবির সমাবেশ

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



নীলফামারীতে প্রায় ১৮ হাজার খুদে কবির সমাবেশ হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে বসে খুদে কবি ও ছড়াকারদের মিলনমেলা। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এ ছাড়া দেশের বিশিষ্ট কবি, লেখক, ছড়াকার অভিনেতা, জাদুশিল্পীরা সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

‘ভিশন ২০২১’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শিশুদের লেখা ছড়া ও কবিতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। গতকাল ছিল প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। সমাবেশ ঘিরে সকাল ১০টা থেকে অনুষ্ঠানস্থলে আসতে থাকে খুদে কবি ও ছড়াকাররা। এ সময় অনেকের সঙ্গে ছিলেন  অভিভাবকরা। সকাল ১১টার মধ্যে ১৫ হাজার মানুষের ধারণক্ষমতার শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।

অনুষ্ঠানে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘শিশুরা লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা, সংস্কৃতিচর্চা, লেখালেখি করবে, মুক্তমনের মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবে। নিরলস পরিশ্রম করে যাঁরা এমন আয়োজনের ব্যবস্থা করেছেন তাঁরা একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ও কবি সাজ্জাদ শরীফ, ছড়াকার আলম তালুকদার, শিশুসাহিত্যিক আখতার হুসেন, শিশুসাহিত্যিক সুজন বড়ুয়া, কবি আসলাম সানী, অভিনেতা মোশাররফ করিম।

এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খালেদ রহীম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার এ বি এম আতিকুর রহমান, পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ,  জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক, জাদুশিল্পী অনিক ও তিসা।

অনুষ্ঠানে কবি, সাহিত্যিক ও ছড়াকারদের মনোমুগ্ধকর কবিতা ও ছড়া আবৃত্তি, মোশাররফ করিমের কণ্ঠে গান, জাদুশিল্পী অনিক ও তিসার প্রদর্শিত জাদু উপভোগ করে দর্শকরা।  অনুষ্ঠানে কবি সাজ্জাদ শরীফ বলেন, ‘দেশে-বিদেশে বহু সম্মেলনে গিয়েছি, কিন্তু নীলফামারীর মতো একসঙ্গে এত কবির সমাগম দেখিনি। কবিতা, ছড়া লিখে ওই খুদে কবিরা নিজেদের সমৃদ্ধ করেছে।’ শিশুসাহিত্যিক আখতার হুসেন বলেন, ‘শিশুরা অকৃত্রিম মানুষ, তারা যত লিখবে, পড়বে তারা ততই অকৃত্রিম মানুষে পরিণত হবে।’

শিশুসাহিত্যিক সুজন বড়ুয়া ছড়া আবৃত্তি করে বলেন, ‘নীলফামারী আজ কবিতা আর ছড়ার বাড়ি।’

শিশুসাহিত্যিক আসলাম সানী বলেন, ‘আমি ওই শিশুদের কবিতা, ছড়া পড়েছি। এখানকার অভিভাবকরা সন্তানদের কিভাবে দেশপ্রেমে উজ্জীবিত করেছেন তাদের লেখা পড়লেই বোঝা যায়।’

অভিনেতা মোশাররফ করিম বলেন, ‘আমি স্বপ্ন দেখি কিন্তু বাস্তবায়ন হয় না। এখানে এসে দেখলাম শিশুরা স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছে। তারা কবিতা, ছড়া লিখছে, অভিভাবকরা তাদের সঙ্গে তাল মেলাচ্ছে। এভাবে যুক্ত থাকলে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবে তারা।’

নীলফামারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও খুদে কবি অদিতি রায় বলে, ‘আজকে আমরা আনন্দিত। আমাদের লেখা কবিতা ও ছড়া নিয়ে এমন সমাবেশ হওয়ায় লেখার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ভিশন ২০২১-এর প্রধান সংগঠক ওয়াদুদ রহমান। তিনি জানান, এলাকার স্কুলের ছেলেমেয়েদের মধ্যে ছড়া ও কবিতা লেখার প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। ওই প্রতিযোগিতায় সদর উপজেলার ৩৩৫টি বিদ্যালয়ের মোট ১৮ হাজার ৪২১ জন শিক্ষার্থী স্বরচিত ছড়া-কবিতা জমা দেয়। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় সেই প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও সমাবেশ। শৃঙ্খলার কাজে নিয়োজিত ছিলেন সংগঠনটির ৬০০ স্বেচ্ছাসেবক।

অনুষ্ঠান শেষে প্রতিযোগিতার বাছাই করা ৪১৪টি ছড়া-কবিতা নিয়ে ‘আমার সোনার বাংলাদেশ’ নামে একটি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ভিশনের সংগঠক রাসেল আমীন স্বপন ও মাসুদ সরকার।



মন্তব্য