kalerkantho


অধিদপ্তরের অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ওষুধের দাম গরিবের নাগালে আসতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



দেশ ওষুধ উৎপাদনে অনেক দূর এগিয়েছে। কিন্তু দরিদ্র মানুষের পক্ষে জীবন রক্ষাকারী ওষুধ কেনা কষ্টকর হয়ে উঠছে। তাই ওষুধের দাম দরিদ্র মানুষের ক্রয়সীমার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম গতকাল সোমবার ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ওষুধকে ‘প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার-২০১৮’ ঘোষণা করায় গতকাল এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে ওষুধ শিল্পের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। বাংলাদেশের ওষুধ আজ ১৪৫টি দেশে রপ্তানি হচ্ছে। আমেরিকায়ও বাংলাদেশের ওষুধ জায়গা করে নিয়েছে। শ্রীলঙ্কায় ভারতের ওষুধ পেছনে ফেলে বাংলাদেশের ওষুধ এক নম্বরে উঠে এসেছে।

ভেজাল ও নকল ওষুধ প্রতিরোধে আরো সক্রিয় হওয়ার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এ ক্ষেত্রে দেশের ওষুধ কম্পানিগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে। ওষুধের মানের ব্যাপারে কোনোমতেই ছাড় দেওয়া যাবে না। ভেজাল ও নকল ওষুধের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। নিম্নমানের ওষুধ উৎপাদনের দায়ে ইতিমধ্যে কিছু কম্পানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ওষুধ শিল্প সমিতির সহায়তা প্রয়োজন। ওষুধের দামের বিষয়টিও অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর প্রাইভেট সেক্টর উন্নয়নবিষয়ক উপদেষ্টা এবং ওষুধ শিল্প সমিতির উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, সমিতির সভাপতি নাজমুল আহসান পাপন এমপি, মহাসচিব এস এম শফিউজ্জামান, ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল মোক্তাদিরসহ অন্যরা।



মন্তব্য