kalerkantho


অর্থাভাবে ধুঁকতে থাকা সাবেক এমপিকে হাসপাতালে ভর্তি

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পর তৎপর সবাই

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



অর্থাভাবে ধুঁকতে থাকা সাবেক এমপিকে হাসপাতালে ভর্তি

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

দেশ ও জনগণের জন্য জীবনবাজি রেখে রাজনীতির শীর্ষে অবস্থান করেও তিনি অর্থ বিত্তকে প্রাধান্য দেননি। অর্জন করেছেন দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীর ও মানুষের ভালোবাসা। অর্থাভাবে বিনা চিকিৎসায় ধুঁকতে থাকা সেই রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ ইউসুফকে অবশেষে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে গতকাল রবিবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

যুদ্ধাপরাধী সালাহ উদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর সাম্রাজ্যের পতন ঘটিয়ে মোহাম্মদ ইউসুফ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থেকে ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন আটদলীয় জোট থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে। অর্থ-বিত্ত না থাকা অতি সাধারণভাবে জীবনযাপন করা অসাধারণ এই রাজনীতিবিদ দীর্ঘদিন ধরে গুরুতর অসুস্থ হয়ে ভাইয়ের ভাড়া বাড়িতে পড়েছিলেন। টাকার অভাবে ঠিকমতো খাওয়াদাওয়া করতে না পারা মোহাম্মদ ইউসুফ চিকিৎসা করাবেন তাঁর কোনো উপায় ছিল না। এ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে ফেসবুকে আলোচনার ঝড় বইছিল। এর পরও কারো সাড়া পাওয়া যায়নি। এই অবস্থায় বিষয়টি সরকার প্রধান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে আসে।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী গতকাল সন্ধ্যায় কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উনার (মোহাম্মদ ইউসুফ) মতো বড় মাপের একজন নেতা সততা ও ত্যাগের কারণে শুধু বাংলাদেশ নয় পৃথিবীতে বিরল। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। সাবেক সংসদ সদস্য। অথচ অতি সাধারণ জীবন যাপন করেছেন। এ রকম নেতা আমি দেখিনি। আজকে (গতকাল) উনার বাড়িতে গিয়ে তাঁকে দেখে আমার চোখের জল চলে এসেছে।’

সিভিল সার্জন বলেন, ‘আমি গতকাল (শনিবার) রাতে ফেসবুকে বিষয়টি জানার পরই সিদ্ধান্ত নেই আজকে (গতকাল) সকালে উনাকে দেখতে যাব। রাতে আমি তা রাঙ্গুনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের জানিয়ে রেখেছিলাম। আজকে সকাল পৌনে ৯টায় রাঙ্গুনিয়ায় তাঁর বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিই। সাড়ে ১১টার দিকে সেখানে গিয়ে সাবেক এই সংসদ সদস্যের ঘরে প্রবেশ করব; সেই মুহূর্তে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুকুর রহমান সিকদার সাহেব প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা জানিয়ে তাঁর চিকিৎসার বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেন। আমি তখন উনাকে বলেছি, আমি সেখানে রয়েছি।’

আইসিইউ ইনচার্জ সহযোগী অধ্যাপক ডা. হারুনুর রশিদ বলেন, ‘২ নম্বর শষ্যায় তিনি চিকিৎসাধীন আছেন। তিনি এর আগে একবার স্ট্রোক করেছিলেন। সেপটিসেমিয়ার কারণে হঠাৎ করে তাঁর স্মৃতিশক্তি লোপ পেয়েছে। সারা শরীরে ইনফেকশন ছড়িয়ে পড়েছে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।’

জানা যায়, মোহাম্মদ ইউসুফের অসহায় অবস্থা নিয়ে গত ৫ জানুয়ারি ফেসবুকে একটি মর্মস্পর্শী লেখা পোস্ট করেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক ছাত্র নেতা হাসান ফেরদৌস। এরপরই বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়।



মন্তব্য