kalerkantho


ওয়ার্ল্ড এক্সপো ২০২৫ আয়োজনে সমর্থন চেয়েছে ফ্রান্স

অনুরোধ বিবেচনার আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



২০২৫ সালের ওয়ার্ল্ড এক্সপোর আয়োজক হতে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের সমর্থন চেয়েছে ফ্রান্স। ফরাসি সরকারের পরামর্শক ও বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডাব্লিউটিও) সাবেক মহাপরিচালক ড. প্যাসকেল লেমি গতকাল রবিবার ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে ওই সমর্থনের জন্য অনুরোধ জানান। প্রধানমন্ত্রী ফ্রান্সের অনুরোধ বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম পরে বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান। অন্যদিকে প্যাসকেল লেমিও গতকাল বিকেলে ঢাকায় ফ্রান্স দূতাবাসে সাংবাদিকদের কাছে তাঁর দেশের প্রার্থিতা, লক্ষ্য ও প্রত্যাশার বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, গত মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্যারিসে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশে রোহিঙ্গা সংকটের প্রভাব বিষয়ে অবগত। ফ্রান্স মনে করে, রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চলছে। এ সংকট সমাধানে আরো রাজনৈতিক চাপ প্রয়োজন।

প্যাসকেল লেমি জানান, ওয়ার্ল্ড এক্সপো একটি বড় আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী। সেখানে আয়োজক দেশ তার অর্জনগুলো তুলে ধরার সুযোগ পায়। ১৯২৮ সালের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী সম্পর্কিত কনভেনশন অনুযায়ী ইন্টারন্যাশনাল এক্সিবিশন ব্যুরো এ প্রদর্শনী দেখভাল করে থাকে। প্যারিসভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল এক্সিবিশন ব্যুরোর ১৭০টি সদস্য রাষ্ট্র ভোটের মাধ্যমে প্রদর্শনীর আয়োজক নির্ধারণ করে থাকে। বাংলাদেশও ওই ব্যুরোর সদস্য। আগামী নভেম্বর মাসে ব্যুরোর ১৬৪তম অধিবেশনে ২০২৫ সালের ওয়ার্ল্ড এক্সপোর আয়োজক নির্ধারণে ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। ফ্রান্স গ্রেটার প্যারিসে ২০২৫ সালের প্রদর্শনী আয়োজনে আগ্রহী। ২০২৫ সালের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীর আয়োজক হিসেবে অপর তিন প্রতিদ্বন্দ্বী হলো জাপান (ওসাকা), রাশিয়া (অ্যাক্টরিনবার্গ) ও আজারবাইজান (বাকু)।

এক্সপো ২০২৫ আয়োজনের লড়াইয়ে ফ্রান্সের মতো তার প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর সঙ্গেও বাংলাদেশের সুসম্পর্ক থাকার বিষয়টি উল্লেখ করে প্যারিসকে কেন ঢাকা সমর্থন দেবে জানতে চাইলে প্যাসকেল লেমি বলেন, বাংলাদেশ ২০২১ সাল ও এর পরবর্তী সময়ের জন্য যেসব লক্ষ্য ঠিক করেছে তার সঙ্গে ফ্রান্সের লক্ষ্য প্রাসঙ্গিক। ফ্রান্স এক্সপো ২০২৫ আয়োজন করলে বাংলাদেশও লাভবান হবে। ফ্রান্সের লক্ষ্য টেকসই উন্নয়ন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, প্যাসকেল লেমি প্রধানমন্ত্রীকে জানান যে ফ্রান্স ওয়ার্ল্ড এক্সপো ২০২৫-এর প্রতিপাদ্য ঠিক করেছে ‘ভাগাভাগির জন্য জ্ঞান, পরিচর্যার জন্য বিশ্ব’।

প্যাসকেল লেমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন।

শেখ হাসিনা কয়েক বছরের বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে বলেন, দেশটি এখন নীল অর্থনীতির (ব্লু ইকোনমি) সম্ভাবনা কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা সংক্রান্ত বিরোধ নিষ্পত্তি করে এ ক্ষেত্রে দক্ষ জনশক্তি তৈরির পদক্ষেপ হিসেবে দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমুদ্রবিজ্ঞান কোর্স চালু করেছে।

শেখ হাসিনা তাঁর সাম্প্রতিক ফ্রান্স সফরের কথা স্মরণ করে একজন তরুণ ও উদ্যমী নেতা হিসেবে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর প্রশংসা করেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্যাসকেল লেমির সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমানও উপস্থিত ছিলেন।

প্যাসকেল লেমি ফ্রান্স দূতাবাসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, ফ্রান্সের প্রার্থিতার জন্য সমর্থন চাইতে তিনি গত নভেম্বর মাস থেকে ১৫টি দেশ সফর করেছেন। দুই দিনের বাংলাদেশ সফর শেষে গত রাতেই তিনি ঢাকা ছাড়েন।

ফ্রান্স দূতাবাসের অনুষ্ঠানে ফ্রান্সের ওয়ার্ল্ড এক্সপো ২০২৫-এর প্রার্থিতার পক্ষে বাংলাদেশ থেকে নির্বাচিত ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর মো. মনিবুর রহমানও বক্তব্য দেন।



মন্তব্য