kalerkantho


মেধাবী মনিকার আকুতি

‘আমি কি বাঁচব না!’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



‘আমি কি বাঁচব না!’

পরিবারের বড় সন্তান মনিকা ইসলাম। ছোটবেলা থেকেই ফুটফুটে ও প্রাণোচ্ছল। লেখাপড়ায় মেধা-মননে উজ্জ্বল। গতবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু খুলনার আলহাজ সরোয়ার খান ডিগ্রি কলেজের ছাত্রী মনিকার ঠাঁই হয়েছে হাসপাতালের বিছানায়। জীবনে বড় মানুষ হওয়ার স্বপ্ন ক্রমেই ফিকে হয়ে যাচ্ছে এই মেধাবী ছাত্রীর। সব আলোর হাতছানি চাপা পড়ে যাচ্ছে প্রাণঘাতী অ্যাকিউট মাইলয়েড লিউকেমিয়া (এএমএল) ক্যাটাগরির ব্লাড ক্যান্সারে।

জাতীয় ক্যান্সার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, মনিকা ইসলাম বর্তমানে ওই হাসপাতালের হেমাটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. মাহাবুবুর রহমানের অধীনে চিকিৎসাধীন। ৮১৬/বি কেবিনে ভর্তি মনিকার বাড়ি খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার চন্দনামহল এলাকায়। ডা. মাহাবুবুর রহমান জানান, মনিকাকে বাঁচানোর একমাত্র উপায় অ্যালোজেনিক বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টেশন, যা এখনো বাংলাদেশে চালু হয়নি। ফলে তাঁকে দেশের বাইরে নিয়ে যেতে হবে। আর এ চিকিৎসা খুবই ব্যয়বহুল। খুলনার আলহাজ সরোয়ার খান ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ এ এস এম সাইফুদ্দোহা বলেন, ‘২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী মনিকা সহপাঠীদের মধ্যে অন্যতম মেধাবী। মেয়েটিকে বাঁচাতে না পারা আমাদের জন্য কষ্টের ব্যাপার হবে।’ ১৯ বছর বয়সী মনিকার চোখেমুখে এখন আর তারুণ্যের সেই উচ্ছলতা নেই। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে মা-বাবার মলিন বিষণ্ন মুখের দিকে চেয়ে থাকাই যেন এখন তাঁর কাজ। খুলনার চন্দনামহল স্টার জুট মিলসের ছোট এক স্টাফ ক্যান্টিন চালিয়ে পাঁচজনের সংসার চালান মনিকার বাবা মনিরুল ইসলাম। এক মেয়ে এবার উচ্চ মাধ্যমিকে আর ছেলে পড়ছে ষষ্ঠ শ্রেণিতে। বড় মেয়ে মনিকার চিকিৎসার জন্য নিজের সর্বস্ব খুইয়ে, ধারদেনা করে আর মানুষের দানে এ পর্যন্ত প্রায় ৩০ লাখ টাকা ব্যয় করেছেন। এ অবস্থায় নিঃস্ব মনিরুল আর মেয়ের চিকিৎসার খরচ চালাতে পারছেন না। তবু সন্তানকে বাঁচানোর আশা কি আর ছেড়ে দিতে পারেন কোনো বাবা! নিরুপায় মনিরুল এখন দেশবাসীর কাছে মেয়েকে বাঁচাতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আকুতি জানিয়েছেন।

হাসপাতালের বিছানায় পড়ে থাকা মনিকা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমি কি বাঁচব না! শুধু টাকার অভাবে আমি মারা যাচ্ছি। প্লিজ, আপনারা আমাকে বাঁচান।’ মনিকার জন্য সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : শেখ মনিরুল ইসলাম, ব্যাংক হিসাব নম্বর : ১২০১৫১১৩৩১৩, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, খুলনা শাখা, ফোন : ০১৭১১৪৫০১৯৫, ০১৭১১৩০৯০৭৪।



মন্তব্য