kalerkantho


খুলনায় দেড় যুগ পর পূর্ণ মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা   

৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



দীর্ঘ ১৮ বছর পর একজন পূর্ণ মন্ত্রী পেল খুলনাবাসী। মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালনকারী প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ গতকাল মঙ্গলবার শপথ নিয়েছেন একই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে। সর্বশেষ খুলনার পূর্ণ মন্ত্রী ছিলেন অ্যাডভোকেট সালাহউদ্দিন ইউসুফ। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারে তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে তিনি ছিলেন দপ্তরবিহীন মন্ত্রী।

মন্ত্রী না থাকলেও একাধিক প্রতিমন্ত্রী ছিলেন খুলনায়। ১৯৯৬ সালে গঠিত আওয়ামী লীগ সরকারে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান তালুকদার আব্দুল খালেক। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে বেগম মন্নুজান সুফিয়ান হন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী। ২০১৪ সালের সরকারে নারায়ণ চন্দ্র চন্দ হন মত্স্য ও প্রাণিসমপদ প্রতিমন্ত্রী। এ ছাড়া সাবেক সচিব ড. মসিউর রহমান মন্ত্রীর পদমর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর শিক্ষাবিদ নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি এ দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করতে চাই। আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণসহ দক্ষিণাঞ্চলের সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসায় আজকের এ অর্জন।’ মন্ত্রী তাঁর নির্বাচনী এলাকার মানুষসহ দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

রাজনীতি : ১৯৬৭ সালে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যুক্ত হন তিনি। ১৯৬৮ সালে পান থানা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব। ১৯৮৪ সালে ডুমুরিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন তিনি। নির্বাচনের মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হন ১৯৯৫ সালে। ২০০৩ সালে গঠিত কমিটিতেও তিনি সরাসরি ভোটের মাধ্যমে সভাপতি নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৫ সালেও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হন তিনি। ওই পদে এখনো তিনি বহাল আছেন। তিনি আওয়ামী লীগ খুলনা জেলা শাখার সদস্য। এ ছাড়া আওয়ামী মত্স্যজীবী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতিও তিনি।

জনপ্রতিনিধিত্ব : বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ডুমুরিয়া উপজেলার ভাণ্ডারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদে তিনি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন। ছয়বার তিনি এই পদে ছিলেন। তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সালাহউদ্দিন ইউসুফের মৃত্যুর পর ২০০০ সালে উপনির্বাচনে নারায়ণ চন্দ্র চন্দ ডুমুরিয়া-ফুলতলা আসনে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০১ সালের অষ্টম সংসদ নির্বাচনে তিনি চারদলীয় জোটপ্রার্থীর কাছে হারলেও ২০০৮ সালে ফের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। একইভাবে জয় পান দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও। সেই সময়ে তিনি দায়িত্ব পান মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিসেবে। এবার হলেন পূর্ণ মন্ত্রী।

 



মন্তব্য