kalerkantho

আদার বহুগুণ

১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



আদার বহুগুণ

খাবারের স্বাদ বাড়ানো ছাড়াও প্রাচীনকাল থেকেই আদা ব্যবহৃত হচ্ছে চিকিৎসার কাজেও। আদায় রয়েছে এমন সব উপাদান, যা আমাদের দেহের জন্য খুবই উপকারী।

আদার কিছু গুণ তুলে ধরা হলো আজকের টিপসে—

ঠাণ্ডা সমস্যা

এই সমস্যা দূর করতে আদা মোটামুটি ‘ওস্তাদ’। ঠাণ্ডা বা জ্বর সারিয়ে তুলতে আদার জুড়ি নেই। সর্দি-কাশি ও ঠাণ্ডা লাগলে আদা খুবই কার্যকরভাবে তা নিরাময়ে সহায়তা করে। এ ছাড়া শ্বাসজনিত কোনো সংক্রমণ হলেও আদা তা সারিয়ে তোলে।

ডায়াবেটিস

ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে আদা অত্যন্ত কার্যকর। আদার উপাদান ইনসুলিন ও বিপাক ক্রিয়া স্বাভাবিক রাখে। ফলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি অনেক কমে যায়।

পিরিয়ডের কষ্ট কমায়

নারীদের পিরিয়ডের কষ্ট কমাতে কার্যকর আদা। বিশেষত এ সময়ের মাথা ব্যথা কমাতে এটি কার্যকর।

এ জন্য অবশ্য অন্যান্য ওষুধের সঙ্গে নয়, বরং অন্যান্য ওষুধ বাদ দিয়ে আদা সেবন করতে হবে।

সংক্রমণ প্রতিরোধক

আদায় রয়েছে সংক্রমণ প্রতিরোধক উপাদান। এসব উপাদান দেহের কোষকে সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। এ ছাড়া বিভিন্ন ধরনের শারীরিক যন্ত্রণা বা জ্বালাপোড়া রোধ করতেও আদা খুব ভালো কাজ করে।

পেটের সমস্যায়

আদা সেবনে পেট খারাপের উপশম হতে পারে। এ ছাড়া পাকস্থলীর অন্যান্য সমস্যা বা ব্যথা রোধ করতে, বদহজম ও হজমে গণ্ডগোল রোধ করতে এটি কার্যকর। এটি দেহে পুষ্টি শোষণের প্রক্রিয়াও উন্নত করে।

বমিভাব

কোথাও ভ্রমণের সময় বমিভাব রোধ করে আদা। এ ছাড়া গর্ভকালে সকালের অসুস্থতা রোধ করতে আদা খুব উপকারী।

হৃদরোগ প্রতিরোধ

আদা দেহের স্বাভাবিক রক্ত সঞ্চালন বজায় রাখতে সহায়তা করে। এতে হৃদরোগ ও অন্যান্য ক্রনিক রোগ প্রতিরোধ সহজ হয়। এ ছাড়া দেহের অন্যান্য বহু রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায় আদা।

ক্যান্সার প্রতিরোধ

বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার প্রতিরোধে আদা কার্যকর। কোলন ক্যান্সার রোধ করতে আদা যথেষ্ট কার্যকর। এ ছাড়া নারীদের জরায়ু ক্যান্সার রোধেও আদার বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।

ওয়েবসাইট অবলম্বনে ওমর শরীফ পল্লব


মন্তব্য