kalerkantho


গৃহবধূ ও প্রতিবন্ধী ধর্ষণের শিকার

বরিশাল অফিস   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



গৃহবধূ ও প্রতিবন্ধী ধর্ষণের শিকার

বরিশালে পৃথক ঘটনায় এক গৃহবধূ এবং বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাতে উজিরপুরে পারিবারের লোকজনকে চেতনানাশক খাইয়ে অচেতন করে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। গত বুধবার রাতে বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নে বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল সকালে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছে।

গৃহবধূর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার রাতে উপজেলার পূর্ব মুণ্ডুপাশা গ্রামে দুধের সঙ্গে চেতনানাশক খাইয়ে ভিকটিম গৃহবধূর পরিবারের তিন সদস্যকে অচেতন করা হয়। পরে রাত আড়াইটায় ওই গৃহবধূকে অচেতন অবস্থায় ঘর থেকে তুলে বাড়ির পাশের একটি বাগানে নিয়ে রাতভর গণধর্ষণ করে অভিযুক্তরা। সকালে ঘুম ভাঙার পর তাঁকে ঘরের সামনে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে জানতে চাইলে ভিকটিম প্রতিবেশী শাহিন ও খলিলের রাতভর ধর্ষণ করার বিষয়টি খুলে বলেন। পরে পুলিশকে জানালে তারা থানায় মামলার জন্য বলে।

উজিরপুর থানার ওসি গোলাম সরোয়ার জানান, ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরের পরে অভিযুক্ত দুই যুবককে বুধবার দিবাগত রাতে গ্রেপ্তার করে গতকাল আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পাশাপাশি ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসিতে) পাঠানো হয়েছে।

বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মেয়েটির শোবার ঘরে শব্দ শুনে তার বড় ভাই এগিয়ে যান। এ সময় সুনিল রায় হাওলাদার নামের এক যুবককে ঘরের মধ্যে দেখতে পাওয়া যায়। বিষয়টি জানাজানি হলে মুচলেকা রেখে সুনিলকে ছেড়ে দেয়। তবে গতকাল সকালে ভিকটিমের ভাই বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন।

কাউনিয়া থানার ওসি নুরুল ইসলাম পিপিএম বলেন, ‘ঘটনার পরপরই অভিযুক্ত সুনিল পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে তাকে গ্রেপ্তার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে। ’


মন্তব্য