kalerkantho


গাইবান্ধায় এসআইয়ের স্ত্রীর আত্মহত্যা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

১১ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



গাইবান্ধা সদর থানার এসআই দেবাশীষ সাহার স্ত্রী লাবণী সাহা (২২) ট্রেনের নিচে ঝাঁপিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ লাইনসংলগ্ন রাধাকৃষ্ণপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরিবারের অভিযোগ, অন্য এক নারীর সঙ্গে স্বামীর প্রেমের সম্পর্ক সইতে না পেরে লাবণী আত্মহত্যা করেছেন। তবে পুলিশ বলছে, এখনো আত্মহত্যার কারণ বোঝা যাচ্ছে না।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, এ বছর ৩ মার্চ কুড়িগ্রাম পৌর এলাকার দেবাশীষ সাহার সঙ্গে ভূরুঙ্গামারী উপজেলার লাবণী সাহার বিয়ে হয়। গাইবান্ধা সদর থানায় বদলির পর পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর দেবাশীষ স্ত্রীসহ শহরের মাস্টারপাড়ায় বসবাস শুরু করেন। গতকাল দেবাশীষ দায়িত্ব পালনের জন্য বাসা থেকে বের হয়ে যান। দুপুরে লাবণী পুলিশ লাইনসংলগ্ন রাধাকৃষ্ণপুর এলাকায় ঢাকাগামী একটি ট্রেনের নিচে ঝাঁপিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন।

পরিবার অভিযোগ করে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় দেবাশীষের সঙ্গে এক নারীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে ব্যাপারটি গোপন করে লাবণীকে বিয়ে করেন। এর পরও সম্পর্কটি বজায় রাখেন দেবাশীষ।

লাবণীর কাকা জীবন কুমার সাহা বলেন, ‘দেবাশীষের ওই প্রেমের ব্যাপারে মেয়েপক্ষ কিছু জানত না। পারিবারিক আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে দেবাশীষের সাথে লাবণীর বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন যাওয়ার পরই লাবণী ঘটনাটি জানে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে অশান্তি লেগেই থাকত। এ নিয়ে বুধবার রাতে লাবণীকে মারপিট করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালেও এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হয়। একপর্যায়ে লাবণীকে ঘরে তালাবদ্ধ করে দেবাশীষ ডিউটিতে যায়। খবর পেয়ে লাবণীর আত্মীয়স্বজনরা এসে তালা খোলার ব্যবস্থা করে চলে যায়। দুপুরে তাকে বাড়িতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। দেবাশীষও বিভিন্নজনকে ফোন করে বিষয়টি জানায়। এর পরই লাবণীর ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া যায়। ’


মন্তব্য