kalerkantho


জাতীয় কমিটি

দেশের স্বার্থবিরোধী ব্লক-চুক্তি বাতিলের দাবিতে সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সরকার বিনা দরপত্রে ও রপ্তানির সুযোগ রেখে গভীর সমুদ্রের ১২ নম্বর ব্লক দক্ষিণ কোরিয়ার দাইয়ুকে ইজারা দেওয়ার চুক্তি করেছে। বিদেশি কম্পানির অংশীদারি বাড়ানো, শুল্ক মওকুফ করা, গ্যাসের দাম বাড়ানো প্রভৃতি সুবিধা দিয়ে যে চুক্তি করা হয়েছে তা দেশের জন্য আত্মঘাতী।

এ চুক্তি জাতীয় স্বার্থের বিরোধী।

গতকাল শনিবার বিকেলে রাজধানীতে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা এ কথা বলেন। পরে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

নেতারা বলেন, রপ্তানিমুখী এ চুক্তি দেশের জ্বালানি-নিরাপত্তাকে বিঘ্নিত করবে। তাঁরা বিনা দরপত্রে ও দায়মুক্তি দিয়ে সম্পাদিত চুক্তি বাতিলের দাবি জানান।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, রুহিন হোসেন প্রিন্স, রাজেকুজ্জামান রতন, মোশরেফা মিশু, জোনায়েদ সাকী প্রমুখ।

আনু মুহাম্মদ বলেন, সমুদ্রের তেল-গ্যাস ব্লক ইজারা দেওয়ার প্রক্রিয়াটি অস্বচ্ছ। বিনা দরপত্রে গোপন সমঝোতার ভিত্তিতে করা এ চুক্তি ভুল নীতি ও দুর্নীতির ফল। তিনি বলেন, এ চুক্তি হওয়ায় অন্য ব্লকগুলোতে একই সুবিধা পাওয়ার জন্য ভারত, চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের কম্পানিগুলো চেষ্টা করবে।

আনু মুহাম্মদ বলেন, দেশের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সংকটের সমাধানে বঙ্গোপসাগরের গ্যাস-সম্পদ আগামী কয়েক দশক প্রধান অবলম্বন হতে পারে। এ সম্পদের বিষয়ে যথানীতি গ্রহণ করলে দেশের স্বার্থ নিশ্চিত করা যেত। অথচ সরকার উল্টো পথে হাঁটছে।

নেতারা বলেন, সরকারের ভুল নীতির কারণে অযৌক্তিকভাবে বাড়ানো হচ্ছে গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম। অন্যদিকে গ্যাস সংকটের কথা বলে কয়লানির্ভর সুন্দরবিনাশী রামপাল প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।


মন্তব্য