kalerkantho


রাজশাহীতে হোটেল থেকে কর্মচারীর লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রাজশাহী মহানগরীর সাহেবজারের গণকপাড়া এলাকার আল হাসিব নামের একটি আবাসিক হোটেলের কক্ষ থেকে এক কর্মচারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাঁর নাম সিরাজুল ইসলাম সিরাজ (৩৫)।

গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হোটেলের চতুর্থ তলার ৪০৩ নম্বর কক্ষ থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁকে হত্যা করে ডাকাতির চেষ্টা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

নিহত সিরাজুল ইসলাম সিরাজ তানোর উপজেলার চান্দুরিয়া দেউতলা গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে। তিনি ওই হোটেলে ১৭ বছর ধরে বয় হিসেবে কাজ করছিলেন।

পুলিশ সূত্র জানা যায়, গতকাল সকাল ১০টার দিকে ‘আল হাসিব’ হোটেলের চতুর্থ তলার ৪০৩ নম্বর কক্ষের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় সিরাজের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন হোটেলের অন্য কর্মচারীরা। এরপর তাঁরা নগরীর বোয়ালিয়া থানায় খবর দিয়ে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। ওই কক্ষ থেকে একটি ধারালো ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

বোয়ালিয়া থানার ওসি শাহাদত হোসেন খান জানান, নিহত সিরাজের ঘাড়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ওই ঘরের কয়েকটি অসবাব ভাঙা ও এলোমেলো অবস্থায় পড়ে ছিল।

সিরাজকে হত্যার পর লাশ ফেলে রাখা হয় বলেও জানান ওসি।  

হোটেলের কর্মচারী সাজু ইসলাম জানান, গত ১৬ মার্চ সন্ধ্যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে এক ব্যক্তি রাজশাহীতে ওই হোটেলে ওঠেন। তবে শনিবার সকাল থেকে ওই ব্যক্তিকে আর দেখা যায়নি। এমনকি হোটেলে ওঠার সময় যে খাতায় ওই ব্যক্তির নাম এন্ট্রি করা হয়েছিল, সেই পাতাটিও ছেঁড়া পাওয়া গেছে। ফলে ওই ব্যক্তির নামও জানা যায়নি।

হোটেলের ব্যবস্থাপক রিপন আলী বলেন, রাতে সিরাজ চতুর্থ তলায় একা ছিলেন। সকালে অন্য কর্মচারীরা এসে সিরাজের লাশ জানালা দিয়ে ভেতরে পড়ে থাকতে দেখেন।

জানা যায়, আল হাসিব প্লাজা নামের ভবনের প্রথম তলায় মার্কেট। দ্বিতীয় তলায় রয়েছে উত্তরা ব্যাংকের সাহেববাজার শাখা। আর তৃতীয় ও চতুর্থ তলায় আল হাসিব আবাসিক হোটেল। পঞ্চম তলায় ভবনের মালিক হাসিবুল ইসলাম মানিকের বাসা। তিনি সেখানে সপরিবারে বসবাস করেন।


মন্তব্য