kalerkantho


এফবিসিসিআই নির্বাচন

মহিউদ্দিনকে সমর্থন দিয়ে সরে দাঁড়ালেন জসিম

এম সায়েম টিপু   

১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



মহিউদ্দিনকে সমর্থন দিয়ে সরে দাঁড়ালেন জসিম

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের বর্তমান প্রথম সহসভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনকে সমর্থন দিয়ে সংগঠনটির ২০১৭-১৯ মেয়াদের নির্বাচনী লড়াই থেকে সরে দাঁড়ালেন সংগঠনের সাবেক সহসভাপতি ও প্লাস্টিক অ্যাসোসিয়েশনের বর্তমান সভাপতি জসিম উদ্দিন। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর লালবাগে সাগুন কমিউনিটি সেন্টারে মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে প্যানেল ‘সম্মিলিত গণতান্ত্রিক পরিষদ’ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় অংশ নিয়ে মহিউদ্দিনের সঙ্গে আগামীতেও একসঙ্গে কাজ করার ঘোষণা দেন জসিম উদ্দিন।

এফবিসিসিআইয়ের সাবেক পরিচালক আবু আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম, আনোয়ার উল আলম চৌধুরী পারভেজ, ইন্দো-বাংলা চেম্বারের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আলী, এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক হেলাল উদ্দিন প্রমুখ।

সভায় জসিম উদ্দিন বলেন, ‘আমি ব্যবসায়ীদের সুখে-দুঃখে সব সময় ছিলাম, আগামীতেও এফবিসিসিআইয়ের হয়ে সাধারণ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে থাকব। ’ তিনি বলেন, ‘মহিউদ্দিন আমার পুরনো বন্ধু। তৈরি পোশাক খাতের সংগঠন বিজিএমইএতে আমরা একসঙ্গে কাজ করেছি। এফবিসিসিআইতেও আমরা ব্যবসায়ীদের স্বার্থরক্ষায় একসঙ্গে কাজ করে যাব। ’ সাধারণ ব্যবসায়ীদের জন্য কাজ করবেন এমন নেতাদের এফবিসিসিআইয়ের আগামী পরিচালনা পর্ষদে মনোনয়ন দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

‘পরিবর্তনের জন্য সাহসী পদক্ষেপ’ স্লোগান নিয়ে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, ‘আজকের এই সভায় উপস্থিত হয়ে সম্মিলিত গণতান্ত্রিক পরিষদের নামটি স্বার্থক করেছেন আমার বন্ধু জসিম উদ্দিন। ব্যবসায়ীদের গত দেড় বছরের সমস্যাগুলো আমার কাছে চিহ্নিত। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় হলো ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ভ্যাট সমস্যা এবং ব্যাংক ঋণের সুদের উচ্চ হার।

এসব সমস্যা সমাধানে আমরা কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিয়েছি। ব্যবসায়ীদের সমস্যা আমলে না নিয়ে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করা যাবে না। আমরা এনবিআরকে বলেছি তাদের সঙ্গে সম্পাদিত সাত দফা চুক্তি আমলে নেওয়ার জন্য। এ জন্য আমি ও জসিম একসঙ্গে কাজ করেছি। আগামী দিনেও তা অব্যাহত থাকবে। ’

ব্যাংক ঋণের উল্লেখ করেন মহিউদ্দিন বলেন, ‘বর্তমান সময় ব্যাংক ঋণের সুদের হার যেটুকু কমেছে তা বাজারের চাহিদার কারণে। এ জন্য আমাদের পর্ষদের বাহবা নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। আর এর সুফল পাচ্ছেন কোটি কোটি টাকার ব্যবসা যাঁরা করেন তাঁরা। এখনো ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের জন্য ঋণের সুদের হার কমেনি। ’

সাধারণ ব্যবসায়ীরা তাঁদের বক্তব্যে বলেন, এফবিসিসিআইয়ের আগামী নির্বাচনে গতিশীল নেতৃত্ব দরকার। যারা সাধারণ ব্যবসায়ীদের সমস্যা সমাধানে কাজ করবে। এ ছাড়া সরকারের নীতিমালার সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করতে পারে এমন নেতৃত্ব জরুরি। এ জন্য এফবিসিসিআইয়ের গবেষণা উন্নয়ন এবং নতুন ও পুরনো ব্যবসায়ীদের নিয়ে আগামী পরিচালনা পরিষদ গঠনের পরামর্শ দেন তাঁরা।


মন্তব্য