kalerkantho


বিএনপির অভিযোগ

বাংলাদেশে ভারতীয় প্রতিরক্ষার এক্সটেনশন করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



চুক্তির আওতায় ভারত নিজেদের তৈরি সমরাস্ত্র বাংলাদেশের কাছে বিক্রি করে দেশটাকে তাদের প্রতিরক্ষাব্যবস্থার এক্সটেনশনে পরিণত করার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল শুক্রবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী এই অভিযোগ করেছেন।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তি, এমনকি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করাটাও হবে বিপজ্জনক। ভারত তাদের প্রস্তাবিত ২৫ বছর মেয়াদি প্রতিরক্ষা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশে তাদের মিলিটারি হার্ডওয়্যার অর্থাৎ সমরাস্ত্র বিক্রি করতে চায়। আমরা মনে করি, ভারতের কাছ থেকে সামরিক হার্ডওয়্যার আমদানি করলে আমাদের প্রতিরক্ষাব্যবস্থা হবে ভারতীয় প্রতিরক্ষাব্যবস্থার একটা এক্সটেনশন মাত্র। এই চুক্তির আওতায় অস্ত্র কেনার শর্তে বাংলাদেশকে ভারত ৫০ কোটি ডলার লাইন অব ক্রেডিট দেবে অর্থাৎ ওই অর্থ দিয়েই ভারত থেকে অস্ত্র কিনতে হবে। এটা ভারতের কৈয়ের তেলে কৈ মাছ ভাজার চানক্য নীতি। এমন প্রতিরক্ষা চুক্তি হলে বাংলাদেশের মানুষ রক্ত দিয়ে তা প্রতিহত করবে। ’

রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর আগে ভারত সফরে গিয়ে ৫০টি চুক্তি করে এসেছেন। ওই সব গোপন চুক্তিতে কী আছে তা দেশের মানুষ আজও জানে না। কারণ চুক্তিগুলোর কোনোটিই জাতীয় সংসদে কিংবা জনসমক্ষে প্রকাশ করা হয়নি।

আবারও একতরফা নির্বাচনের পাঁয়তারা হচ্ছে—আমীর খসরু : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী অভিযোগ করেছেন, সরকার আবারও জনগণকে বাইরে রেখে একতরফা নির্বাচনের পাঁয়তারা করছে। জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দলের ১১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠনে সংলাপের প্রয়োজনীয়তা ও নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনাসভায় তিনি এ কথা বলেন।

আমীর খসরু বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে যাবে কি না, না গেলে কী হবে—এসব নিয়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে। নির্বাচন না করলে বিএনপির নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে এমন কথাও বলা হচ্ছে। ’


মন্তব্য