kalerkantho


মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সংবাদ সম্মেলন

বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন সংশোধনের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনের সমালোচনা করেছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। তিনি বলেছেন, ‘১৯২৯ সালের বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে বিয়ের সর্বনিম্ন বয়স ছিল ১৮ ও ২১ বছর।

ওই আইনে শাস্তি ছিল একেবারেই কম। শাস্তির বিধান বাড়ানোর জন্য আইনটি সংশোধন করার প্রস্তাব ছিল। কিন্তু সদ্য প্রণীত আইনে বিশেষ বিধান প্রণয়ন করায় আইনের উদ্দেশ্য পুরোই ব্যাহত হবে। প্রণীত এ আইনটি আন্তর্জাতিক সব আইন ও সনদের পরিপন্থী। প্রণীত আইনটি সংশোধনের দাবি জানাই। ’

গতকাল বৃহস্পতিবার মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি-২০১৬’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রিয়াজুল হক এসব কথা বলেন। গত বছরের সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদের পরিসংখ্যান নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

কাজী রিয়াজুল বলেন, ‘সরকার বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনের বিধিমালা প্রণয়নে যে প্রাথমিক খসড়া তৈরি করেছে, সেটিও উপযোগী নয়। শিশু নির্যাতনের হার উদ্বেগজনক হারে বেড়ে গেছে।

শিশুদের নির্যাতন থেকে বাঁচাতে হলে, নির্যাতনের সঙ্গে জড়িত অপরাধীদের দ্রুত বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত বছর সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী শিশু ধর্ষণ, ধর্ষণের চেষ্টা, নির্যাতন, নিখোঁজ, পাচার ও বাল্যবিয়ে ২০১৫ সালের তুলনায় বেড়েছে। ২০১৫ সালের চেয়ে গত বছর সড়ক দুর্ঘটনা, দুর্ঘটনা, শিক্ষাসংক্রান্ত সমস্যা, হত্যা ও হত্যাচেষ্টা, অপহরণ, আত্মহত্যা, এসিড নিক্ষেপ ও রাজনৈতিক সহিংসতায় শিকার হওয়ার ঘটনার সংবাদ কম ছিল।

গত বছর ও এর আগের তিন বছরে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত শিশু নির্যাতনসংক্রান্ত সংবাদের তুলনামূলক পরিসংখ্যান তুলে ধরেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের শিশু অধিকার সুরক্ষাবিষয়ক কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন। সভাপতিত্ব করেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম।


মন্তব্য