kalerkantho


দিল্লিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কঠোর ব্যবস্থা সত্ত্বেও দেশীয় কিছু গোষ্ঠী উগ্রবাদী হয়েছে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সরকারের কঠোর ব্যবস্থা সত্ত্বেও বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ কিছু গোষ্ঠী উগ্রবাদী হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন। গতকাল বুধবার নয়াদিল্লিতে সন্ত্রাসবিরোধী তৃতীয় সম্মেলনে বক্তব্য রাখার সময় তিনি এ কথা জানান। ওই উগ্রবাদী গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে কিছু মৌলবাদী রাজনৈতিক দল, যুদ্ধাপরাধের বিচার ও দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নবিরোধী চক্রের যোগসাজশ আছে বলেও তিনি জানান।

নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, ভারতের উপরাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারি গতকাল স্থানীয় একটি হোটেলে তিন দিনব্যাপী ওই সম্মেলন উদ্বোধন করেন। ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন নামের একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওই সম্মেলন আয়োজন করেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন তাঁর বক্তব্যে সন্ত্রাসের ব্যাপারে কোনো ধরনের ছাড় না দেওয়ার বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেকোনো ধরনের সন্ত্রাস ও সহিংস উগ্রবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের অবস্থান ঘোষণা করেছেন। ’

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী ঘটনা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জনসাধারণের সক্রিয় সহযোগিতা ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর নিরলস প্রচেষ্টায় পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে। তিনি বলেন, প্রতিবেশী বা বিশ্বের কোনো প্রান্তেই সন্ত্রাসের জন্য বাংলাদেশ কখনো তার ভূখণ্ড ব্যবহার হতে দেবে না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, কঠোর ব্যবস্থা সত্ত্বেও দেশীয় কিছু গোষ্ঠী উগ্রবাদী হয়েছে। তিনি বলেন, ‘কিছু ঘটনা দেখা গেছে, তারা কিছু মৌলবাদী রাজনৈতিক দলের যোগসাজশে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে এবং সন্ত্রাসের মাধ্যমে দেশে ব্যাপক আর্থসামাজিক উন্নয়নে বাধা দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সন্ত্রাস দমনে বাংলাদেশের সমন্বিত পরিকল্পনা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সন্ত্রাসবিরোধী কৌশলে চারটি ভিত্তি রয়েছে। এগুলো হলো প্রতিরোধ, ভাঙন, সক্ষমতা সৃষ্টি ও মানবাধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন।

বাংলাদেশ ছাড়াও সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানের মন্ত্রী ও কর্মকর্তারা সম্মেলনে বক্তব্য দেন।


মন্তব্য