kalerkantho


গরুর মাংসের দাম বাড়ার প্রভাব

ফেব্রুয়ারিতে মূল্যস্ফীতি ৫.৩১%

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



গরুর মাংসের দাম বাড়ার প্রভাব পড়েছে মূল্যস্ফীতিতেও। ফেব্রুয়ারিতে গড় মূল্যস্ফীতি মাসওয়ারি (পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে) দাঁড়িয়েছে ৫.৩১ শতাংশে, যা জানুয়ারি মাসে ছিল ৫.১৫।

খাদ্যপণ্যেও মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ৬.৮৪ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৬.৫৩। তবে খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৩.০৭ শতাংশে, যা এর আগের মাসে ছিল ৩.১০। অন্যদিকে বেড়েছে মজুরি সূচক হার। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হালনাগাদ প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলানগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মূল্যস্ফীতির এ হালনাগাদ তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) মহাপরিচালক আমীর হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

মূল্যস্ফীতির কারণ ব্যাখ্যা করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে গরুর মাংসের দাম বেড়েছে। আর এ কারণে গড় মূল্যস্ফীতি বেড়ে গেছে। কারণ, এর প্রভাব অন্যগুলোতে পড়েছে।

পাশাপাশি ফেব্রুয়ারিতে ভোজ্য তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে মূল্যস্ফীতি ঘটেছে বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী। এর আগে গত জানুয়ারিতে মূল্যস্ফীতির কারণ হিসেবে পরিকল্পনামন্ত্রী মোটা চালের দাম বাড়ার কথা বলেছিলেন। প্রসঙ্গত, চলতি বছরের প্রথম মাস থেকেই মূল্যস্ফীতির হার ঊর্ধ্বমুখী। একজন ভোক্তা গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে যে পণ্য বা সেবা ১০০ টাকায় কিনেছেন, চলতি বছরের একই মাসে সেই একই পণ্য বা সেবাটি কিনতে হয়েছে ১০৫ টাকা ৩১ পয়সায়।

বিবিএসের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ফেব্রুয়ারিতে শহরের গড় মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে দাঁড়িয়েছে ৫.৬২ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৫.৫৭। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ৭.২২ শতাংশে, যা এর আগের মাসে ছিল ৭.১১। তবে খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের ক্ষেত্রে কোনো পরিবর্তন আসেনি। ফেব্রুয়ারিতে খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৩.৯১ শতাংশ, যা এর আগের মাসে একই ছিল।


মন্তব্য