kalerkantho


জেলা জজসহ দুই বিচারককে শোকজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় দায়ের করা একটি মামলার আসামির জামিন আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ না করায় মাগুরার জেলা ও দায়রা জজের কাছে ব্যাখ্যা তলব করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে একই জামিন আবেদন এখতিয়ার বহির্ভূতভাবে শুনানি করায় ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারকের কাছেও ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। আগামী ২২ মার্চের মধ্যে তাঁদের লিখিতভাবে হাইকোর্টে ব্যাখ্যা দাখিল করতে বলা হয়েছে।

গতকাল সোমবার বিচারপতি মো. মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি এ এন এম বশির উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার আহমেদ সবুজ নামের এক যুবকের করা এক আবেদনের ওপর শুনানিকালে আদালত এ আদেশ দেন। আদালতে সবুজের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট আমিমুল এহসান জুবায়ের। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ এ কে এম মনিরুজ্জামান কবির।

ফেসবুকে সরকারবিরোধী পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে গত বছর ১০ সেপ্টেম্বর সবুজের বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করা হয়। এ মামলায় মাগুরার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন আবেদন করলে আদালত তা খারিজ করেন। পরে মাগুরার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করেন সবুজ। কিন্তু দায়রা জজ আদালত একই বছরের ১৭ নভেম্বর শুনানিতে অস্বীকৃতি জানান।

এরপর ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে জামিন আবেদন করেন সবুজ। গত ২৬ জানুয়ারি সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক তাঁর জামিন আবেদন খারিজ করেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন সবুজ। হাইকোর্ট আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে দুই বিচারককে শোকজ করে আদেশ দেন।


মন্তব্য