kalerkantho


রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলনের সমাপ্তি

দুই গুণী পেলেন রবীন্দ্র পদক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



দুই গুণী পেলেন রবীন্দ্র পদক

রাজধানীর কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারে শওকত ওসমান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের ৩৬তম বার্ষিক অধিবেশনের শেষ দিনে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে সনদ বিতরণ করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের তিন দিনের জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলনের শেষ দিনে রবীন্দ্র পদক দেওয়া হয়েছে দুই গুণীকে। এবার এই পদক পেয়েছেন তবলাশিল্পী মদন গোপাল দাস ও পটশিল্পী শম্ভু আচার্য। এ ছাড়া সম্মিলন পরিষদের ৩৬তম এই অধিবেশনে সন্জীদা খাতুনকে সভাপতি, বুলবুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক ও নাসেহুন আমিনকে কোষাধ্যক্ষ করে ৬৩ সদস্যের কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার সকালে পরিষদের সভাপতি সন্জীদা খাতুনের সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় প্রতিনিধি সম্মেলন। তাতে প্রতিবেদন পেশ করেন বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক লাইসা আহমদ লিসা। এর আগে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন তাঁরা।

বিকেলে সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি ছিলেন ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। রবীন্দ্রসংগীত প্রতিযোগিতার কিশোর ও সাধারণ বিভাগের পুরস্কার ও সনদ, তবলাশিল্পী মদন গোপাল দাস ও পটশিল্পী শম্ভু আচার্যকে রবীন্দ্র পদক ও গুণীজন সম্মাননা দেওয়া হয়। মদন গোপাল দাসের পক্ষে পুরস্কারটি নেন তাঁর ছেলে। এ বছর রবীন্দ্রসংগীত প্রতিযোগিতায় কিশোর বিভাগে সারা দেশ থেকে অনন্য মান পেয়েছে সিঁথি সরকার। সমাপনী সন্ধ্যায় ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

শিল্পাঙ্গনে ভারতের দুই শিল্পীর যুগলবন্দি প্রদর্শনী : ছাপচিত্রে সমকালীন ভারতের শিল্পীদের মধ্যে শিল্পী অজিত শীল ও উত্তম কুমার বসাক স্বতন্ত্র। এ দুই শিল্পীকে নিয়ে গতকাল শিল্পাঙ্গন গ্যালারিতে শুরু হয়েছে ‘ডাইভারসিটি ইন ডুয়ালিটি’ শীর্ষক প্রদর্শনী। এ দুই শিল্পীই শান্তিনিকেতনের ছাত্র এবং দুজনই শান্তিনিকেতনে ছাপচিত্রের শিক্ষক। ছাপচিত্রের সঙ্গে আঙ্গিক প্রকরণের যোগ গভীর। এই দুই শিল্পী আঙ্গিক প্রয়োগে, করণকৌশলে নিজেদের স্বাতন্ত্র্যের জানান দেন। নিজস্ব শিল্প-ভাবনা শিল্পরসিকদের কাছে তাঁদের আলাদা বৈশিষ্ট্যে তুলে ধরে।

এঁদের মধ্যে অজিত শীলের নর-নারী একটি প্রধান বিষয়। নর-নারীর সম্পর্ক নানাভাবে ঘুরে ফিরে উঠে আসে তাঁর ক্যানভাসে। অন্যদিকে উত্তম কুমার বসাকের ছবিতে প্রাধান্য পায় চারপাশের চেনা জগৎ। গতকাল সন্ধ্যায় প্রধান অতিথি হিসেবে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বরেণ্য শিল্পী রফিকুন নবী। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থপতি মুস্তাফা খালিদ পলাশ। প্রদর্শনী নিয়ে আলোচনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন শিল্পী অজিত শীল ও উত্তম কুমার বসাক। স্বাগত বক্তব্য দেন গ্যালারির পরিচালক রুমী নোমান।

প্রদর্শনীতে অজিত শীলের ২৯টি আর উত্তম কুমার বসাকের ২১টি ছাপচিত্র স্থান পেয়েছে। চলবে ২৪ মার্চ পর্যন্ত।


মন্তব্য