kalerkantho


এসপি মিজানের ভয়ে পালিয়ে বেড়ানোর অভিযোগ ব্যবসায়ীর

অস্বীকার করলেন মিজান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



এসপি মিজানের স্থাপনায় নকল সারের কারখানা নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের তথ্যদাতা সন্দেহে এক ব্যবসায়ীকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগকারী ব্যবসায়ী ওসমান গণি (রিপন) দাবি করেছেন, হুমকির বিষয়ে সাধারণ ডায়েরি করার চেষ্টা করলেও থানা তা নেয়নি। গতকাল শনিবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

রিপনের অভিযোগ অস্বীকার করে এসপি মিজানুর রহমান অবশ্য বলেছেন, ওই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী রিপন জানান, তিনি কৃষিকাজে ব্যবহৃত রাসায়নিক সারের ব্যবসায় নিয়োজিত। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি বর্তমানে পুলিশ কর্মকর্তা এসপি মিজানের রোষানলে পড়ে প্রাণভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। ’ তিনি জানান, এই পুলিশ কর্মকর্তার স্থাপনায় নকল সারের কারখানা নিয়ে গত ৫, ৬ ও ৭ ফেব্রুয়ারি কালের কণ্ঠ পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। অভিযুক্ত কারখানাগুলো এরই মধ্যে সিলগালা করে দিয়েছে কৃষি বিভাগ। এ বিষয়ে মামলাও হয়েছে। রিপন বলেন, ‘এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ভেজাল সার কারখানার খবর আমি গণমাধ্যমে প্রকাশ করে দিয়েছি সন্দেহে এসপি মিজান ও তাঁর ভেজাল সার ব্যবসার পার্টনাররা মোবাইল ফোনে আমাকে ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন। এ বিষয়ে সাধারণ ডায়েরি করার চেষ্টা করলেও থানা অভিযোগ নেয়নি।

ওই ব্যবসায়ী আরো বলেন, ‘এসপি মিজান ও তাঁর ভেজাল সারের ব্যবসায়িক অংশীদার সাইদুর রহমান খান ও ইমাম হোসেন ক্রমাগত আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন। এরই মধ্যে এ বিষয়ে পুলিশ মহাপরিদর্শক বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছি। তবে কোথাও কোনো সুরাহা না পেয়ে ন্যায়বিচার ও প্রাণরক্ষায় সংবাদ সম্মেলন করছি। ’

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার কোনো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান নেই। আমার সুনাম নষ্ট করতে একটি মহল এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে। ওসমান গণি রিপন নামে কাউকে চিনি না। তাঁর সঙ্গে কখনো কথা বা দেখাই হয়নি। সাইদুর রহমান ও ইমাম হোসেনের সঙ্গে রিপনের কী বিরোধ আছে, তা আমি বলতে পারব না। রিপনের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। ’


মন্তব্য