kalerkantho


রংপুরে ঝুঁকিতে বহু মানুষ

বহুতল ও বাণিজ্যিক ভবনে নেই অগ্নিনির্বাপণব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর   

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রংপুরের বহুতল ও বাণিজ্যিক ভবনগুলোতে অগ্নিনির্বাপণব্যবস্থা নেই। এতে করে ভবনগুলোর কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি ও আশপাশের অসংখ্য মানুষ রয়েছে মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে।

মালিকরা আইন না মেনে ভবন তৈরি করায় এমন অবস্থা হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে অনুধাবন করে অচিরেই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সূত্রে জানা যায়, আইন অনুযায়ী ভবনগুলোতে প্রয়োজনীয় অগ্নিনির্বাপণব্যবস্থা তৈরি করতে বারবার তাগাদা দেওয়া সত্ত্বেও আমলে নিচ্ছেন না ভবন মালিকরা। রংপুর জেলায় অন্তত ৫০টি বহুতল ভবন রয়েছে, যেগুলো অগ্নি আইন না মেনে নিজেদের খেয়ালখুশিমতো তৈরি করা হয়েছে। সূত্র আরো জানায়, ২০০৩ সালের ‘অগ্নিপ্রতিরোধ ও অগ্নি হইতে উদ্ধার আইন’ অনুসারে এসব বহুতল ভবনে নিজস্ব স্থায়ী অগ্নিনির্বাপণব্যবস্থা, নিজস্ব পাম্প, রাইডার, গ্যাস মাস্কসহ কয়েক রকম ডিটেক্টর, আলাদা বহির্গমন পথ, ভবনের ওপর ও নিচে সংরক্ষিত পানির ব্যবস্থা রাখা হয়নি।

ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায় আরডিআরএস ভবন, ডেন্টাল কলেজ, প্রাইম হসপিটাল, নর্থ ভিউ, ক্যাসপিয়া, গোল্ডেন টাওয়ার, শাহ আমানত ও এসএ পরিবহনের মতো বড় বড় প্রতিষ্ঠানের ভবনের নামও রয়েছে। একই অবস্থা জেলার প্রায় ৩০০ বাণিজ্যিক ভবন এবং বিভিন্ন বাজার ও বিপণিবিতানের।

রংপুর ফায়ার সার্ভিস দপ্তরের একটি দল এখন নিয়মিত বাণিজ্যিক ও বহুতল ভবন পরিদর্শনে যাচ্ছে। দলটির সদস্যরা সম্প্রতি রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে এর অগ্নিপ্রতিরোধব্যবস্থা দেখে হতবাক হয়ে যান।

শুধু রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালই নয়, রংপুরের বেসরকারি কোনো হাসপাতালেই অগ্নিনির্বাপণব্যবস্থা নেই।


মন্তব্য