kalerkantho


নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়া শুরু

‘রেডিও-টেলিভিশনের সাংবাদিক-কর্মচারীদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সংবাদকর্মীদের জন্য বেতন-ভাতা পুনর্নির্ধারণে ৯ সদস্যের নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেছেন, ‘সংবাদপত্রে কর্মরত সাংবাদিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে এবার এই মজুরি কাঠামোয় রেডিও ও টেলিভিশনে কর্মরত সাংবাদিক ও কর্মচারীদের অন্তর্ভুক্তির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে নীতিগতভাবে সরকারের সিদ্ধান্ত ইতিবাচক। এ জন্য আইনগত পদক্ষেপ নিতে তথ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে অংশীজনদের কাছে মতামত চাওয়া হয়েছে। ’ 

গতকাল তথ্য মন্ত্রণালয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু নবম ওয়েজ বোর্ড দ্রুত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তাঁর মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ অবস্থা তুলে এসব তথ্য জানান। মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশন ও বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজপেপার প্রেস ওয়ার্কার্স প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব তথ্য জানিয়ে দ্রুত নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের আশা প্রকাশ করেন। বাংলাদেশ সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি মো. মতিউর রহমান তালুকদার ও বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজপেপার প্রেস ওয়ার্কার্স সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন খান এ সময় তথ্যমন্ত্রীর কাছে ১০ দফা দাবিসংবলিত একটি স্মারকলিপি পেশ করেন।

১০ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে দ্রুত নবম ওয়েজবোর্ড গঠন, কর্মচারী-প্রেস শ্রমিকদের জন্য দুঃস্থ কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন এবং অফিস ও আবাসন ব্যবস্থা, নিউজপেপার অ্যাক্ট ১৯৭৪ পুনর্বহাল, সংবাদপত্রশিল্পের নীতিমালা প্রণয়ন ও সাংবাদিক-শ্রমিক-কর্মচারীদের সমান সুবিধা দেওয়া, ছাঁটাইকৃত সাংবাদিক-শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ, ছাঁটাই বন্ধ, ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার বাস্তবায়ন ও সব পত্রিকায় ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন।

হাসানুল হক ইনু অরো বলেন, ‘আইনি জটিলতার কারণে ইলেকট্রনিক মিডিয়া, টেলিভিশন ও কমিউনিটি রেডিও এবং এফএম রেডিওর কর্মীদের ওয়েজ বোর্ডের অধীনে রাখা যায়নি। কিভাবে তা করা যায়, তা ঠিক করতে অংশীজনদের নিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় একটি কমিটি করেছে। এটা করতে আইনে হাত দিতে হবে।

আমরা নীতিগতভাবে তাদেরও ওয়েজ বোর্ডের অধীনে আনতে নীতিগতভাবে সম্মত আছি। ’

জানা গেছে, গত জানুয়ারি মাসে নবম ওয়েজবোর্ড গঠনের প্রস্তাব অনুমোদন হয়েছে। তার পরপরই বোর্ডের সভাপতিসহ ৯ সদস্যবিশিষ্ট পরিষদ গঠনের জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর কাছে মনোনয়ন চাওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজপেপার প্রেস ওয়ার্কার্স প্রতিনিধিদের নামের প্রস্তাব পাওয়া গেছে। নিউজপেপারস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব) ও বাংলাদেশ সংবাদপত্র কর্মচারী ফেডারেশন প্রতিনিধির নাম শিগগিরই পাওয়া যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

তথ্যমন্ত্রী জানান, এখন পর্যন্ত পাওয়া প্রস্তাবগুলোর ভিত্তিতে ওয়েজ বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। তিনি বলেন, ‘অনেক দূর এগিয়েছি। আমরা আশা করছি, অতি দ্রুত আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করা যাবে। ’


মন্তব্য