kalerkantho


মাগুরায় স্বাধীনতা বিরোধীদের নামে থাকা ৪ সড়কের নাম পরিবর্তন

মাগুরা প্রতিনিধি   

৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



হাইকোর্টের নির্দেশে স্বাধীনতাবিরোধীদের নামে থাকা মাগুরার চারটি সড়কের নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। সড়কগুলোর মধ্যে তিনটি সড়ক মাগুরা শহরের অন্যটি মহম্মদপুর উপজেলার বিনোদপুরে।

পৌর মেয়র খুরশিদ হায়দার টুটুল জানান, মঙ্গলবার রাতে মাগুরা পৌরসভার পক্ষ থেকে মাইকিং করে শহরের মকলেছুর রহমান সড়ক (এম আর রোড), হাবিবুর রহমান সড়ক (এইচআর রোড়) ওয়াজেদ আলী খান সড়কে নাম পরিবর্তনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। সাথে নতুন নামকরণ না করে এম আর রোডকে কলেজ রোড, হাবিবুর রহমান সড়ককে নতুন বাজার সড়ক ও ওয়াজেদ আলী খান সড়কটি আবালপুর সড়ক হিসেবে পূর্বের নামে পরিচিতি পাবে। এ তিনটি সড়কে থাকা সাইনবোর্ড থেকে স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের মালিকদের নিজ উদ্যোগে বর্তমানে লেখা সড়কের নাম পরিবর্তনের আহবান জানানো হয়েছে। সম্প্রতি হাইকোর্টে দেওয়া এক নির্দেশে পৌর কতৃপক্ষ এ উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানান, পৌর মেয়র টুটুল। এ বিষয়ে গত ৩১ জানুয়ারী পৌর পরিষদের সভায় রেজুলেশন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোলস্না নবুয়ত আলী জানান, স্বাধীনতা বিরোধীদের নামে থাকা সড়কগুলোর নাম পরিবর্তন করায়  মুক্তিযোদ্ধারা অত্যন্ত্ম খুশি হয়েছে। এটি মাগুরাবাসীর প্রানের দাবি ছিল। তিনি বলেন, মাগুরা গুরম্নত্বপুর্ণ যে তিন সড়ক এক সময় স্বাধীনতা বিরোধীদের নামে করা হয়েছিলো, তারা প্রত্যেকেই একাত্তরে পিস কমিটির নেতৃত্বে ছিলেন। যুদ্ধকালে তাদের নিদের্শে ও তাদের নামেই মাগুরায় নানা স্বাধীনতা বিরোধী কর্মকান্ড সংঘটিত হয়েছে।

 

বিনোদপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও মহম্মদপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতি রাজ্জাক মন্ডল জানান, স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের দাবীর মুখে ও পরবর্তীর্তে মহামান্য হাইকোর্টে নির্দেশে একাত্তরে ১২ মুক্তিযোদ্ধা হত্যাকারী কুখ্যাত রাজাকার কমান্ডার চাঁদ আলীর নামে থাকা বিনোদপুর বাবুখালী সড়কের নাম ফলক গত ৫ জানুয়ারি ভেঙ্গে ফেলে উপজেলা প্রশাসন।

এ প্রসঙ্গে আব্দুর রাজ্জাক মন্ডল অভিযোগ করেন, কুখ্যাত রাজাকার হওয়া সত্বেও চাঁদ আলী স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে আওয়ামীলীগের রাজনীতি করার সুযোগ পেয়েছে। এমনকি তাকে জেলা কৃষকলীগের সভাপতি পর্যন্ত্ম বানানো হয়েছে। ২০১৫ সালে তার ছেলে মিজান শিকদারকে বিনোদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বানানো হয়েছে। এমনকি বিগত ইউপি নির্বাচনে ওই রাজাকার পুত্রকে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দিয়ে চেয়ারম্যান পর্যন্ত্ম বানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি হাইকোর্ট সারাদেশে স্বাধীনতা বিরোধীদের নামে থাকা সড়ক ও স্থাপনার নাম অপসারনের নির্দেশ দেয়। পরবর্তীতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় থেকে মাগুরার এই চারটিসহ সারাদেশে স্বাধীনতা বিরোধীদের নামে থাকা ৩২ সড়কের তালিকা প্রকাশ করা হয়।


মন্তব্য