kalerkantho


মোবাইল ব্যাংকিংয়ে সার্ভিস চার্জ কমবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেনের ক্ষেত্রে বিদ্যমান সার্ভিস চার্জ কমানোর লক্ষ্যে কাজ করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। পরিচালনা পর্ষদে আলোচনার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে আলোচনা হচ্ছে এ বিষয়ে। গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলেন এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনসীমাসংক্রান্ত জারি করা সার্কুলারের ব্যাখ্যা দিতে গতকাল সংবাদ সম্মেলন আহ্বান করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান এতে বক্তব্য দেন। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা ও মহাব্যবস্থাপক লীলা রশিদ। এ সময় মহাব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ, উপ-মহাব্যবস্থাপক এস এম রেজাউল করিম, যুগ্ম পরিচালক প্রজ্ঞা পারমিতা সাহাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপিস্থত ছিলেন।

ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান বলেন, গত ১১ জানুয়ারি জারি করা সার্কুলার নিয়ে জনমনে এক ধরনের বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। নতুন নির্দেশনায় ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিকে টাকা পাঠানো, ইউটিলিটি বিল, বেতন পরিশোধ, সরকারি যেকোনো পরিষেবার ক্ষেত্রে লেনদেনসীমা আগের মতোই রয়েছে। তবে নগদ জমা ও উত্তোলনের পরিমাণ কমানো হয়েছে। আর একটি মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানে একজন গ্রাহকের একাধিক অ্যাকাউন্ট থাকলে তা বন্ধ করতে বলা হয়েছে।

লেনদেনকে ঝুঁকিমুক্ত করতেই এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, বর্তমানে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে টাকা পাঠাতে ২ শতাংশ হারে চার্জ কাটা হয়। এটা অনেক বেশি। কিভাবে এটা কমানো যায় তা নিয়ে বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের টাকা লেনদেনের সঙ্গে চারটি পক্ষ জড়িত থাকে। প্রত্যেক পর্যায়ে কমিশনের ফলে সাধারণ ব্যাংকের তুলনায় চার্জ বেশি থাকবে। নিজের অ্যাকাউন্ট থাকার পরও অনেকে এজেন্টের কাছে গিয়ে টাকা পাঠাচ্ছে। এ উপায়ে বৈধ লেনদেনের পাশাপাশি মুক্তিপণ আদায়, ঘুষসহ অপরাধমূলক ঘটনা ঘটছে।

এক প্রশ্নের জবাবে লীলা রশিদ বলেন, অন্য ব্যাংকগুলোর অনেক সেবার মধ্যে মোবাইল ব্যাংকিং ক্ষুদ্র একটি সেবা। তবে বিকাশ শুধু মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দেওয়ায় তারা ভালো করেছে। এখানে বিশেষ কোনো আনুকূল্য ছিল, বিষয়টি তেমন না।

গত ১১ জানুয়ারির এক সার্কুলারের মাধ্যমে লেনদেনসীমা কমিয়ে দিনে দুবারে সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা জমা এবং ১০ হাজার টাকা উত্তোলন করতে বলা হয়। আগে দৈনিক ২৫ হাজার টাকা জমা বা উত্তোলন করা যেত। এ ছাড়া পাঁচ হাজার টাকা বা তার বেশি জমা বা উত্তোলন করতে হলে পরিচয়পত্রের ফটোকপি লাগবে। আর একই নামে একাধিক অ্যাকাউন্ট থাকলে তা বন্ধ করতে বলা হয়।


মন্তব্য