kalerkantho


কিয়ামত পর্যন্ত হলেও হাসিনার অধীনে নির্বাচন নয় : গয়েশ্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



কিয়ামত পর্যন্ত হলেও হাসিনার অধীনে নির্বাচন নয় : গয়েশ্বর

কিয়ামত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হলেও শেখ হাসিনার অধীনে বিএনপি নির্বাচনে যাবে না বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। একই সঙ্গে তিনি ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জেল হলেও জামিনে এসে নির্বাচন করতে পারবেন’ বলে দলের নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করেন।

এ ছাড়া দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ বলেছেন, নির্বাচন কমিশনের নির্লিপ্ততার কারণে ১৮টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে ক্ষমতাসীনরা সহিংসতা সৃষ্টির আশকারা পাচ্ছে। আজ সোমবার এ উপজেলাগুলোতে নির্বাচন হচ্ছে। তিনি বলেন, আওয়ামী পরীক্ষায় পাস করেছেন বলেই নুরুল হুদাকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার পৃথক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় এ দুই নেতা। এর মধ্যে দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আজকের বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় গয়েশ্বর চন্দ্র বক্তব্য দেন। এ ছাড়া দলের পক্ষে দুপুরে নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন রুহুল কবীর রিজভী।

বীর-উত্তম শহীদ জিয়া শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত ওই আলোচনাসভায় গয়েশ্বর বলেন, ‘জনগণের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনতে আমাদের এই আন্দোলন, শুধু ক্ষমতায় যাওয়াটা আমাদের লক্ষ্য নয়। আমাদের আরো ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। আমি স্পষ্ট ভাষায় বলছি, কিয়ামত পর্যন্ত অপেক্ষা করব; তবু শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন করব না।

’ তিনি দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, ‘যাঁরা স্বপ্ন দেখেন নানাভাবে; আমাদেরও মাঝে কিছু আইনজীবী ফর্মুলা দেন—জেল হইব, জামিন হইব আবার নির্বাচনও হবে। তাঁদের বলব, এসব ফর্মুলা দেওয়া বন্ধ রাখেন। কিসের জেল, কী কারণে জেল? যাদের ফাঁসি হওয়ার কথা, তারা রাষ্ট্র চালায়। আর আমরা কোনো অপরাধ না করে আমাদের নেত্রীর জেল দিব। এতই সহজ নাকি বাংলাদেশটা, আমরা কি সব মরে গেছি নাকি? আর কী জেল দিব, সারা দেশটাই তো একটা জেলখানা!’

আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি কাজী মুনিরুজ্জামান। এতে ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য খালেদা ইয়াসমীন, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

দুপুরে নয়াপল্টনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ উপজেলা নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের সহিংসতা বন্ধ না করায় নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘দলের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনের এ ধরনের নির্লিপ্ত ও নির্বাক ভূমিকার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। ’

 

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার দেশের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে রিজভী বলেন, সিইসির বাড়ি থেকে রাঙ্গাবালী উপজেলার দূরত্ব মাত্র ২৫ কিলোমিটার। নিজ এলাকায় যেখানে নির্বাচনী সহিংসতা বন্ধে সিইসি ব্যর্থ, সেখানে কিভাবে সারা দেশের নির্বাচন তিনি বা তাঁর কমিশন কন্ট্রোল করবে, সেটাই এখন বড় প্রশ্ন।

তারেকের কারাবন্দি দিবসের কর্মসূচি : সংবাদ সম্মেলনে ৭ মার্চ বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১১তম কারামুক্তি দিবসের কর্মসূচি ঘোষণা করেন রিজভী। তিনি জানান, দিবসটিতে ঢাকাসহ সারা দেশের জেলা ও মহানগরে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবীর খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, মনির হোসেন, যুবদলের এস এম জাহাঙ্গীর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য