kalerkantho


চুরির মামলা

কিডনি রয়েছে কি না, আজ ঢাকায় পরীক্ষা

নাটোর প্রতিনিধি   

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আদালতের নির্দেশে কিডনি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে ঢাকায় রওনা দিয়েছেন ভুক্তভোগীসহ তাঁর পরিবার। গতকাল রবিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নাটোর হরিশপুর বাস টার্মিনাল থেকে তাঁরা রওনা দেন।

এ সময় রোগীর সঙ্গে স্বামী, ছেলেসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা ছিলেন।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি নাটোরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক আমলি আদালত ১-এর বিচারক শামসুল আল আমীন রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত ন্যাশনাল কিডনি ইনস্টিটিউট ডিজিস অ্যান্ড ইউরোলজির পরিচালককে রোগী আসমা বেগমের শরীরে কিডনি রয়েছে কি না, থাকলেও কী অবস্থায় রয়েছে তা জানার জন্য তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড বসিয়ে রোগীকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানোর নির্দেশ দেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর আগামী ৩০ মার্চের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। এ অনুযায়ী আজ সোমবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে ঢাকায় কিডনি পরীক্ষা করাতে গেলে তাঁদের গুম করে ফেলা হবে বলে মোবাইল ফোনে হুমকি দিচ্ছে হাসপাতাল ও চিকিৎসকের লোকজন। গত শনিবার রাতে ভুক্তভোগী আসমা বেগমের ছেলে হাবিব বিশ্বাসকে এ হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, দেড় বছর আগে পেটে ব্যথা নিয়ে নাটোর শহরের মাদরাসা মোড়ের জনসেবা হাসপাতালে ভর্তি হন সিংড়া উপজেলার ফজলু বিশ্বাসের স্ত্রী আসমা বেগম। পরে কিডনির পাথর অস্ত্রোপচার করেন রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. এম এ হান্নান। কিন্তু রোগী সুস্থর পরিবর্তে অসুস্থ হয়ে পড়লে সম্প্রতি পরীক্ষা-নিরীক্ষায় কিডনি না থাকার বিষয়টি উঠে আসে।

এ ঘটনায় আদালতে হাসপাতালের পরিচালক, চিকিৎসক ও অবেদনবিদসহ সাত-আটজনের নামে মামলা করে ভুক্তভোগীর পরিবার।


মন্তব্য