kalerkantho


মিরপুরে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন

পাঁচ দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি মূল হোতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রাজধানীর মিরপুরের শেওড়াপাড়ায় বন্ধুর চায়নিজ কুড়ালের কোপে নিহত সজীব হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও গতকাল শনিবার পর্যন্ত মূলহোতা সৌরভকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও মিরপুর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শাহজালাল আলম জানান, সৌরভকে ধরতে সম্ভাব্য সব জায়গায় অভিযান চালানো হয়েছে।

গতকাল পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তা ছাড়া হত্যাকাণ্ডে সৌরভের সহযোগী রুবেলকে এক দিনের রিমান্ড শেষে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নিহত সজীবের বাবা আব্দুর রশীদ জানান, পাঁচ দিনে মূল খুনিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এটা খুবই দুঃখজনক। অতি দ্রুত মূল খুনি সৌরভকে আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান তিনি। গত মঙ্গলবার রাতে মিরপুরের পশ্চিম শেওড়াপাড়ার ১৭৮/এ নম্বর বাসার পাশে স্কুল ছাত্র সজীবকে কুপিয়ে হত্যা করে তার দুই বন্ধু সৌরভ ও রুবেল। ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন রুবেলকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করলেও সৌরভ সপরিবারে পালিয়ে যায়।

কদমতলীতে চাচা-ভাতিজা গুলিবিদ্ধের ঘটনায় আটক ১ :  রাজধানীর কদমতলীতে চাচা-ভাতিজা গুলিবিদ্ধের ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। কদমতলী থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী জানান, এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে।

তদন্তের স্বার্থে তার নাম প্রকাশ করা হচ্ছে না। এদিকে ঢামেক চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গুলিবিদ্ধ দুজনকে অপারেশন করে গুলি বের করা হয়েছে। পরে তাদের পোস্ট অপারেটিভে ও কেবিনে নেওয়া হয়।    

আল আমিনের বাবা শাহজাহান মিয়া বলেন, তাঁরা কদমতলীর পশ্চিম মোহাম্মদবাগ এলাকায় থাকেন। শামসুল হক বাস্তুহারা লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। কদমতলীতে তার গার্মেন্ট ব্যবসাও রয়েছে। তিনি জানান, স্থানীয় বেলাল, ইমরানসহ বেশ কয়েকজন গাঁজা, ইয়াবার ব্যবসা করে। নিজেরাও সেবন করে। শামসুল হক মাঝে মাঝে এলাকায় মাদকবিরোধী সভা-সমাবেশ করে থাকেন।


মন্তব্য