kalerkantho


রৌমারীতে এসএসসি ব্যবহারিক পরীক্ষা

অবৈধ সুবিধা দিতে টাকা আদায়!

রৌমারী (কুড়িগাম) প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলায় তিনটি এসএসসি পরীক্ষাকেন্দ্রে ব্যবহারিক পরীক্ষায় নকলের সুবিধা এবং বেশি নম্বর দেওয়ার কথা বলে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতি বিষয়ে ১০০ টাকা হারে জনপ্রতি ৭০০ টাকা করে কেন্দ্রের দুই হাজার ৪৭৮ পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে প্রায় ১৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, শৌলমারী এমআর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এক হাজার ১৫৫ জন, যাদুরচর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৮৫০ ও সিজি জামান উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষাকেন্দ্রে ৪৭৩ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা সব পরীক্ষার্থীকে দিতে হবে। এ ছাড়া মানবিক বিভাগে কৃষিবিজ্ঞান ও শরীরচর্চা এবং বিজ্ঞান বিভাগের পদার্থ, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও উচ্চতর গণিত বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা রয়েছে।

শৌলমারী এমআর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে, প্রতি বিষয়ের জন্য ১০০ টাকা করে দিতে হয়েছে। এ জন্য ব্যবহারিক পরীক্ষায় পুরো নম্বর দেবেন বলে জানানো হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পরীক্ষার্থী বলে, ‘স্যাররা কইছে টাকা না দিলে ব্যবহারিক পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেবে। ’ স্কুলের সহকারী একাধিক শিক্ষক জানান, পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদের বই দেখে লেখার সুযোগ দেওয়া হয়। কেননা ব্যবহারিক পরীক্ষায় সাধারণত কেন্দ্র পরিদর্শক বা ম্যাজিস্ট্রেট উপস্থিত থাকেন না। ফলে শিক্ষকরাও সুযোগ পান।

অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শৌলমারী এমআর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহীদুল ইসলাম লিচু বলেন, ‘কেন্দ্র চালাতে হলে নানা খরচ হয়। সে কারণে প্রতি বিষয়ে ৫০ টাকা হারে আদায় করা হয়। এর বাইরে কোনো টাকা নেওয়া হয় না। সব স্কুলেই ওই টাকা আদায় করা হয়। ’

এ প্রসঙ্গে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহালম পারভেজ বলেন, ‘আমাদের কাছে কেউ অবৈধভাবে টাকা আদায়ের অভিযোগ করেনি। অভিযোগ না পেলে তো আমরা কিছু করতে পারি না। ’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন তালুকদার বলেন, ‘লিখিত কোনো অভিযোগ পাইনি। তবে পরীক্ষার সময় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা হবে শিক্ষকরা নকলের সুবিধা দেয় কি না। ’


মন্তব্য