kalerkantho


গোয়ালন্দে খামারে দুর্বৃত্তের আগুন

৯ গবাদি পশুর মৃত্যু পুড়ে ছাই তিন ঘর

বালিয়াকান্দিতে তিনটি ঘর ভস্মীভূত

রাজবাড়ী প্রতিনিধি ও গোয়ালন্দ প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে একটি খামারে দুর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে ৯টি গবাদি পশুর মৃত্যু হয়েছে। পুড়ে ছাই হয়েছে খামারের তিনটি ঘর।

এতে দশ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন খামারি আরশাদ আলী শেখ। ঘটনাটি ঘটে গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের উত্তর চরপাঁচুরিয়া গ্রামে।

পুলিশ, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, উত্তর চরপাঁচুরিয়া গ্রামের কৃষক আরশাদ আলী শেখ ছয় মাস আগে অস্ট্রেলিয়ান প্রজাতির দশটি গাভি ও পাঁচটি ছাগল কিনে তাঁর বসতবাড়ির পাশে একটি খামার তৈরি করেন। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে তিনি খামার বন্ধ করে বসতঘরে ঘুমাতে যান। পরে অজ্ঞাতপরিচয় একদল দুর্বৃত্ত এসে খামারের একটি ঘরের বেড়ায় আগুন লাগিয়ে পালায়। আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে এলাকার লোকজন এসে আগুন নেভায়। ততক্ষণে পুড়ে মারা যায় চারটি গাভি ও পাঁচটি ছাগল। ছাই হয়ে যায় তিনটি ঘর।

আরশাদ আলী জানান, খামারটিতে বৈদ্যুতিক সংযোগ ছিল না। মশার কয়েলও জ্বালানো হয়নি। তিনি বলেন, ‘অজ্ঞাতপরিচয় দুর্বৃত্তরা আমার খামারে আগুন লাগিয়ে পালিয়েছে। এতে আমার ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ’

দেবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবদুল জলিল শেখ বলেন, ‘গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. বদরুদ্দোজা শুভ সকালে (গতকাল শুক্রবার) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্ত খামার মালিককে সরকারি সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন। ’

গোয়ালন্দঘাট থানার ওসি মির্জা আবুল কালাম আজাদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঘটনা তদন্তে মাঠে নেমেছে পুলিশ। ’

এদিকে বালিয়াকান্দি উপজেলার কুরশীর বালিয়াচর গ্রামে গতকাল শুক্রবার দুপুরে অগ্নিকাণ্ডে তিনটি ঘর ভস্মীভূত হয়েছে। এতে ক্ষতি হয়েছে লক্ষাধিক টাকার।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, কুরশীর বালিয়াচর গ্রামের মোমিন মোল্লার বাড়ির রান্নাঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত। আগুন মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে মোমিন মোল্লার দুটি ঘর ও গোলাপদী মোল্লার একটি ঘরসহ মালপত্র পুড়ে যায়। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আসার আগেই স্থানীয় লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।


মন্তব্য