kalerkantho


দাম কমেনি গরুর মাংসের অন্যান্য জিনিস স্বাভাবিক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



পরিবহন ধর্মঘট, হরতালসহ নানা কারণে খাদ্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির শঙ্কা থাকলেও তা পুরোপুরি কার্যকর হয়নি।

সাময়িক দাম বাড়লেও সবজি, মাছ, মাংস ও তেলের দামে এক সপ্তাহে ঘটেনি তেমন হেরফের। সপ্তাহশেষে গতকাল ফের স্বাভাবিক হয়েছে পণ্য বাজার। তবে মাংস ব্যবসায়ীদের আন্দোলন-পরবর্তী বাড়ানো দাম ফেরেনি আর আগের অবস্থায়। রাজধানীর বেশির ভাগ বাজারে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে গরু ও খাসির মাংস।

বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল আলম বলেন, ‘আন্দোলনের পর আমাদের কাছ থেকে বাড়তি খাজনা আদায় করা হচ্ছে। আর আমাদের দাবিদাওয়ার কোনো সমাধান এখনো হয়নি। ব্যবসায়ীরা এখন তাদের খরচের অনুপাতে দাম নির্ধারণ করে গরুর মাংস বিক্রি করছে। ’

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে দেখা গেছে, গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ টাকা কেজি। কিন্তু অন্য বাজারগুলোতে ৪৯০-৫৩০ টাকা কেজি দামে তা বিক্রি হচ্ছে। খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০-৮০০ টাকা কেজি।

আন্দোলনের আগে গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছিল ৪৪০-৪৫০ টাকায়।

এদিকে পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটে মঙ্গলবার রাতে বিভিন্ন পণ্যের ট্রাক ঢাকায় নির্ধারিত সময়ে প্রবেশ করতে না পারায় পরদিন বিভিন্ন ধরনের সবজি কেজিতে দুই-পাঁচ টাকা বেশি দামে বিক্রি হলেও পরদিন তা স্বাভাবিক হয়েছে। এ সময়ে সরবরাহ সংকটে বিভিন্ন প্রকারের মাছের দামও প্রতি কেজিতে বৃদ্ধি পেয়েছিল ২০-৩০ টাকা, তারও স্বাভাবিক হয়েছে এক দিন পর।

কারওয়ান বাজারের পাইকারি বিক্রেতা আলতাফ হোসেন বলেন, সবজির সরবরাহে মঙ্গলবার কিছুটা সমস্যা ছিল। বুধবার ধর্মঘট প্রত্যাহার হলে যথেষ্ট পণ্য বাজারে ঢুকেছে। বরং অন্য দিনের চেয়ে বেশি সরবরাহ হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার ঢাকার কারওয়ান বাজার, ধানমণ্ডি, সেগুনবাগিচা, মালিবাগ, ফার্মগেটসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পেঁয়াজ ২৫ টাকা কেজি, আলু ১৬-২০ টাকা, বেগুন ৩০-৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে বাজারভেদে প্রতি কেজি ৪৫-৬০ টাকায়, শিম ৩০-৪০ টাকায়, টমেটো ৩০-৪০ টাকা, উস্তে ৫০-৬০ টাকা, ফুলকফি ১৫-২৫ টাকা, বাঁধাকফি ২০ টাকায়, পটল ৫৫-৬০ টাকায় এবং গাজর ৩০ টাকায়।

মাছের বাজারে ৫০০ গ্রাম থেকে এক কেজি পর্যন্ত ওজনের রুই মাছ ২২০-২৪০ টাকায়, তার চেয়ে বেশি ওজনের রুই মাছ কেজিপ্রতি ২৮০-৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কৈ মাছ প্রতি কেজি ২৪০-২৬০ টাকায়, টেংরা ৪২০-৫০০ টাকায় এবং পাঙ্গাশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৩০ টাকায়।   ৬০০-৬৫০ গ্রাম ওজনের ইলিশ প্রতি হালি বিক্রি হচ্ছে এক হাজার ৫০০-দুই হাজার টাকায়। এ ছাড়া ব্রয়লার মুরগি ১৪৫-১৫৫ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। বিভিন্ন প্রকারের চাল ও সয়াবিন তেলের দামে কোনো পরিবর্তন আসেনি গত কয়েক দিনে।


মন্তব্য