kalerkantho


সংবাদ সম্মেলনে ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি

রায়ের প্রতিবাদে ধর্মঘট আদালত অবমাননার শামিল

আদালত প্রতিবেদক   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



এক নারীকে হত্যার দায়ে ট্রাক ড্রাইভারকে দেওয়া মৃত্যুদণ্ডের প্রতিবাদে পরিবহন ধর্মঘট ডাকা আদালত অবমাননার শামিল। বিষয়টি পর্যবেক্ষণে আছে।

তথ্য-প্রমাণ হাতে এলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) খোন্দকার আবদুল মান্নান এ মন্তব্য করেছেন।

গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকার নিম্ন আদালতে নিজের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। খোন্দকার আবদুল মান্নান বলেন, সোমবার ঢাকার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ট্রাকচালক মীর হোসেনকে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে ওই দণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মামলার ঘটনায় জানা যায়, নিহত খোদেজা বেগম (৩৮) ও আসামি মীর হোসেন সাভারের ঝাউচার এলাকার বাসিন্দা। ২০০৩ সালের ২০ জুন খোদেজার বাড়ির সামনের পারিবারিক রাস্তা দিয়ে ট্রাকে করে মাটি নিয়ে যাচ্ছিলেন মীর হোসেন। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ট্রাকের সামনে এসে দাঁড়ান খোদেজা ও তাঁর স্বামী নুরু গাজী। তাঁরা তাঁদের পারিবারিক রাস্তা দিয়ে মাটিভর্তি ট্রাক চলাচলে বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে খোদেজার ওপর দিয়ে ট্রাক চালিয়ে দেন মীর হোসেন।

ঘটনাস্থলেই খোদেজার মৃত্যু হয়। সাক্ষ্য-প্রমাণে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।

জেলা পিপি বলেন, তদন্তে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড হিসেবে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় মামলার চার্জশিট হয়। চার্জ গঠনের পর বিচারের সব প্রক্রিয়া শেষে রায় দেওয়া হয়েছে। আপিলের মাধ্যমে এ বিষয়ে আসামির এখনো বলার সুযোগ রয়েছে। এ অবস্থায় আইন ও বিচারপ্রক্রিয়া সম্পর্কে না জেনে আদালতের রায়ের প্রতিবাদে পরিবহন শ্রমিক সংগঠনের ধর্মঘটের ডাক আদালত অবমাননার শামিল। পরিবহন সংগঠনগুলো সঠিক তথ্য না জেনে কারো উসকানিতে ধর্মঘটের ডাক দেয়। এতে সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়ে।


মন্তব্য