kalerkantho


বিদ্যুৎ খাতের একগুচ্ছ প্রকল্প উদ্বোধন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



দেশের ১০ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন, বিভিন্ন স্থানে আটটি বিদ্যুৎকেন্দ্রের উত্পাদন কার্যক্রমসহ বিদ্যুৎ খাতের একগুচ্ছ কর্মসূচি আজ বুধবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিন। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ উত্পাদনের স্বল্পমেয়াদি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শেষ হয়েছে। এখন মধ্যমেয়াদি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন চলছে। এ পরিকল্পনা অনুযায়ী পটুয়াখালীর পায়রায় একটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ শুরু হয়েছে। কক্সবাজারের মাতারবাড়ীতে জাপানের অর্থায়নে একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ হবে। এ ছাড়া রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ হচ্ছে। এসব কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে চার হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসবে। তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যতে এলপিজি দিয়ে বিদ্যুৎ উত্পাদন করা হবে। এ ছাড়া বিদ্যুৎ উত্পাদনে মিথেন ব্যবহারের কথা আমরা চিন্তা করছি। ’

নসরুল হামিদ আরো বলেন, ‘আঞ্চলিক সহযোগিতার মাধ্যমে আমরা বিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে অনেক দূর এগিয়েছি।

নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আনার বিষয়ে দ্রুতই আমরা চুক্তি সই করব। এ ছাড়া ভারতের খোলাবাজার থেকে বিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে আলোচনা চলছে। ’

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, দেশের ১০টি উপজেলার শতভাগ মানুষকে বিদ্যুতের আওতায় আনা হয়েছে। আজ সকাল ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এই ১০টি উপজেলা হলো ঢাকার কেরানীগঞ্জ ও সাভার, মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী, গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া, টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর, চট্টগ্রামের কর্ণফুলী, ফেনীর দাগনভূঞা, কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর, মেহেরপুরের মুজিবনগর এবং লালমনিরহাটের সৈয়দপুর। বিদ্যুৎ বিভাগের দাবি, এ সব উপজেলার শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুতের সংযোগ রয়েছে। এর মধ্যে পাঁচটি উপজেলায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এ পাঁচটি উপজেলা হলো কোটালীপাড়া, মুজিবনগর, ভূঞাপুর ও সৈয়দপুর।

এ ছাড়া উদ্বোধন করা হবে বান্দরবানের থানচি উপজেলা বিদ্যুতায়ন প্রকল্প। দুর্গম এই উপজেলার মানুষ প্রথমবারের মতো বিদ্যুতের আওতায় এলো।

প্রধানমন্ত্রী যে আটটি নতুন বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন সেগুলোর মধ্যে আছে শাহজীবাজার ৩৩০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎকেন্দ্র, আশুগঞ্জ ৪৫০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট (সাউথ), মানিকগঞ্জ ৫৫ মেগাওয়াট তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, নবাবগঞ্জ ৫৫ মেগাওয়াট তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, নারায়ণগঞ্জ ৫৫ মেগাওয়াট তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, জামালপুর ৯৫ মেগাওয়াট তেল ও গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং বরিশাল ১১০ মেগাওয়াট তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। এ ছাড়া খুলনা ১৫০ মেগাওয়াট গ্যাস টারবাইন বিদ্যুৎকেন্দ্রকে ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল কেন্দ্রে উন্নীতকরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এসব কেন্দ্র থেকে ১২২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে।

এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী বিবিয়ানা-কালিয়াকৈর ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন এবং ৪০০/২৩০/১৩২ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘গত বছরের আগস্টে আমরা ছয়টি উপজেলার শতভাগ মানুষকে বিদ্যুতের আওতায় এনেছি। আগামীকাল ১০টি উপজেলার শতভাগ মানুষকে বিদ্যুতের আওতায় আনা হবে, যার উদ্বোধন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করবেন। আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০১৭ সালের জুনের মধ্যে ১০১টি উপজেলার শতভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাবে, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে আরো ৮১টি উপজেলার শতভাগ ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে। ’


মন্তব্য