kalerkantho


জাতিসংঘ দূতের বিবৃতি

রোহিঙ্গা নির্যাতন ধারণার চেয়ে ভয়াবহ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



জাতিসংঘের স্পেশাল র‌্যাপোর্টিয়ার (বিশেষ দূত) ইয়াংহি লি বলেছেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর যে সহিংসতা চালানো হয়েছে, তা অনুমানের চেয়ে অনেক বেশি। তিনি রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর দুর্দশার অবসানে অনতিবিলম্বে উদ্যোগ নিতে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

২০ থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি চার দিনের বাংলাদেশ সফর শেষে গতকাল সোমবার জেনেভায় এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি সরেজমিন পরিদর্শন প্রসঙ্গে লি বলেন, ‘ওই পরিবারগুলো যে মাত্রার সহিংসতা প্রত্যক্ষ করেছে ও সহিংসতার শিকার হয়েছে, তা আমার আগের অনুমানের চেয়ে অনেক বেশি। ’

ইয়াংহি লি বাংলাদেশ সফরের সময় গত ৯ অক্টোবর মিয়ানমারে দমন-পীড়ন অভিযান শুরুর পর থেকে এ দেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। গতকাল জেনেভায় জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনারের দপ্তর থেকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে। এর আগে লির সফর সম্পর্কিত ১৭ ফেব্রুয়ারির বিবৃতিতে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি উল্লেখ করা হয়নি। মিয়ানমার সরকার ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি ব্যবহার না করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনারের দপ্তর জানায়, ইয়াংহি লি রোহিঙ্গাদের কারো কারো জিহ্বা কেটে ফেলা, নির্বিচারে গুলিবর্ষণ, লোকজনকে ঘরে বেধে রেখে আগুন দেওয়া, ছোট্ট শিশুদের আগুনে ছুড়ে ফেলা, গণধর্ষণ ও অন্যান্য সহিংসতার মতো ভয়ংকর অভিযোগ লিপিবদ্ধ করেছেন।

৯ অক্টোবর মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী পুলিশের চৌকিতে হামলার পর শুরু হওয়া নিরাপত্তা অভিযানে মানবাধিকার লঙ্ঘন প্রসঙ্গে ইয়াংহি লি মিয়ানমার সরকারের আচরণ, বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নির্বিচার ব্যবস্থা নেওয়ার মাধ্যমে তাদের জীবন আরো কঠিন করে তোলার বিষয়টিও লিপিবদ্ধ করেছেন।

ইয়াংহি লি আগামী ১৩ মার্চ জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলে তাঁর পুরো প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন।


মন্তব্য