kalerkantho


যাত্রাবাড়ীতে পুড়ল জুতার কারখানা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



যাত্রাবাড়ীতে পুড়ল জুতার কারখানা

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে গতকাল একটি জুতার কারখানায় আগুন লাগে। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজধানীতে আবারও অগ্নিকাণ্ডে একটি জুতার কারখানা পুড়ে গেছে। গতকাল সোমবার সকাল ১১টার দিকে যাত্রাবাড়ীর মির্জাবাড়ী এলাকায় দুই ভাইয়ের গড়ে তোলা ‘ক্ল্যাসিক সোলস’ নামের কারখানাটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। কারখানায় ওয়েল্ডিং কাজ চলার সময় আগুনের স্ফুলিঙ্গ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এরপর রাসায়নিক পদার্থের সাহায্যে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ২২টি ইউনিট প্রায় আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায়, অর্থাৎ বিকেল ৩টার দিকে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। তবে আগুনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জনা যায়, কারখানার মালিক জুয়েল ও নোবেল দুই ভাই। ঘটনার সময় তাঁরা কারখানার বাইরে ছিলেন। কারখানাটিতে দুই শিফটে আড়াই শ শ্রমিক কাজ করে। নতুন-পুরনো মিলে ২২টি মেশিন ছিল। এর মধ্যে আটটি মেশিনে জুতার সোল তৈরি করা হতো।

কারখানা-লাগোয়া আরেকটি কারখানায় ওই সোল দিয়ে জুতা তৈরি করা হয়। স্থানীয় বাজারসহ বড় বড় কয়েকটি কম্পানির জুতাও ওই দুই কম্পানিতে তৈরি করে সরবরাহ করা হতো। বিশেষ করে কারখানাটিতে বাটা জুতার কাজও করা হতো। আগুনে দুই ভাইয়ের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত কারখানার মার্কেটিং ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘কারখানার পিবিসি ইউটিন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। ওই ইউনিটের জুতার সোল ও ফিতা তৈরি করা হয়। আগুন লাগার পর বিকট শব্দ হয়। ভেতরে রাসায়নিক পদার্থ থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। ওই সময় কারখানার ভেতরে শতাধিক শ্রমিক কাজ করছিল। তবে আগুন লাগার পরপরই ভেতরে কর্মরত শ্রমিকরা দ্রুত বের হয়ে আসে। ’

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী শ্রমিক আরো জানায়, কারখানার জুতা রাখার দ্বিতল স্থাপনা তৈরির কাজ চলছিল। ওই সময়ে ওয়েল্ডিং মেশিনের বৈদু্যুতিক স্ফুলিঙ্গ থেকে আগুন লেগে ছড়িয়ে পড়ে। আগুন দ্রুত পাশের আরেকটি কারখানায়ও ছড়িয়ে পড়ে। দুটি কারখানাই টিনশেডের আধাপাকা একতলা ভবন। আগুনে দুটি কারখানার মধ্যে একটি পুরোপুরি পুড়ে গেছে।

ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন) মেজর শাকিল নেওয়াজ বলেন, ‘কারখানায় আগুন নেভানোর কোনো ব্যবস্থা ছিল না। প্রশিক্ষিত জনবলও নেই। খবর পেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতেও বেগ পেতে হয়েছে।


মন্তব্য