kalerkantho


পুরান ঢাকার ব্যবসায়ীর গলা কাটা লাশ কেরানীগঞ্জে উদ্ধার

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ঢাকার কেরানীগঞ্জে এক পুরনো কম্পিউটার ব্যবসায়ীর মুখ ও হাত-পা বাঁধা গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় কাকালিয়া এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত ব্যবসায়ীর নাম মো. এমরান হোসেন (৩৫)। তিনি হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার কাটিহারা এলাকার মৃত সুরত আলীর ছেলে। পুরান ঢাকার হোসেনি দালান মার্বেল গলি এলাকায় থেকে পুরনো কম্পিউটারের ব্যবসা করতেন তিনি।

নিহত এমরানের বড় ভাই মলু মিয়া বলেন, শনিবার হোসেনি দালান মাসজিদে মাগরিবের নামাজ পড়ে কিছু মাল কেনার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে বের হন এমরান। রাত ৮টার দিকে কল করে তাঁর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। রাতে আর তিনি বাড়ি ফেরেননি।

মলু মিয়া বলেন, অনেক জায়গায় এমরানকে খোঁজাখুঁজি করে তাঁরা ঘুমিয়ে পড়েন। গতকাল সকালে যে যার কাজে চলে যান। সন্ধ্যার পর পুলিশের ফোন পেয়ে তাঁরা কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় এসে ভাইয়ের লাশ শনাক্ত করেন।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স ও কমিউনিটি পুলিশিং) মো. মোক্তার হোসেন জানান, শাক্তা এলাকার লোকজনের মুখে খবর পেয়ে তাঁরা ঘটনাস্থল কাকালিয়া এলাকায় যান। সেখানে একটি পরিত্যক্ত ভিটায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের গামছা দিয়ে মুখ ও হাত-পা বাঁধা গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। নিহত ব্যক্তির শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন এবং অণ্ডকোষ কাটা রয়েছে।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকের মুহাম্মদ যুবায়ের জানান, পকেটে থাকা ভিজিটিং কার্ড থেকে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে এমরানের পরিচয় উদ্ঘাটন করে পুলিশ। পরে তাঁর স্বজনরা রাত সাড়ে ৯টায় থানায় এসে লাশ শনাক্ত করে। কারা এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত এখনো জানা যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে কোনো মেয়েলি ঘটনাও জড়িত থাকতে পারে। এ ব্যাপারে থানায় হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন।


মন্তব্য