kalerkantho


চালকের যাবজ্জীবন

খুলনা বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট আজ থেকে

বিশেষ প্রতিনিধি, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



দুর্ঘটনায় চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও সাংবাদিক মিশুক মুনীরের নিহত হওয়ার জন্য দায়ী বাসচালকের যাবজ্জীবন সাজার রায়ের প্রতিবাদে খুলনার ১০ জেলায় পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছে একটি সংগঠন। আজ রবিবার সকাল ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের এ ধর্মঘট শুরু হবে।

গতকাল শনিবার বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের খুলনা বিভাগীয় আঞ্চলিক কমিটির সভায় ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সে অনুযায়ী খুলনা বিভাগের খুলনা, বাগেরহাট, যশোর, সাতক্ষীরা, নড়াইল, মাগুরা, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ ও মেহেরপুরে বাস-মিনিবাস ও ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকবে।

পরিবহন শ্রমিক সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, বাসচালক জামির হোসেনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় ঘোষণার পর থেকেই কয়েক দিন ধরে শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। যার পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল দুপুরে যশোরের চাঁচড়া এলাকায় শ্রমিক ভবনে ফেডারেশনের নেতারা জরুরি সভায় বসেন। ফেডারেশনের খুলনার আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি আজিজুল আলম মিন্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ৩৪টি বেসিক সংগঠনের শ্রমিক নেতারা অংশ নেন। তাঁরা অভিযোগ করেন, চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহনের বাসচালক জামির হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হলেও বিশেষ মহলের চাপে সাজার রায় হয়েছে।

সভায় শ্রমিকরা কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি দেওয়ার জন্য নেতাদের ওপর চাপ দেয়। তারা বলে, একজন চালকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় হওয়ার পর তারা গাড়ি চালাবে না। একপর্যায়ে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে চেয়ার ছোড়াছুড়ি শুরু করে।

এ সময় মঞ্চে থাকা নেতারা সভাস্থল ছেড়ে যেতে বাধ্য হন। ২০ মিনিট পর শ্রমিক নেতারা আবার সভাস্থলে এসে শ্রমিকদের শান্ত করেন এবং অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সভায় অন্যদের মধ্যে ফেডারেশনের নেতা সাদেক আহমেদ খান, রবিউল হোসেন রবি, মোর্ত্তজা হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় উপস্থিত থাকা চুয়াডাঙ্গা জেলা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রিপন মণ্ডল ধর্মঘট ডাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ১৩ আগস্ট মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার জোকা এলাকায় চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে সংঘর্ষে মাইক্রোবাস আরোহী তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহত হন। এ ঘটনায় করা মামলার রায় দেওয়া হয় গত বুধবার। ওই দিন থেকেই চুয়াডাঙ্গা জেলায় পরিবহন শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করে আসছে।

শ্রমিকদের ধর্মঘটের কারণে জেলায় বাস-মিনিবাস ও ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে। এর প্রভাবে পড়েছে জনজীবনে।


মন্তব্য