kalerkantho


প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণসভা

‘আ ক ম যাকারিয়ার গ্রন্থই তাঁর অস্তিত্ব’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বরেণ্য প্রত্নগবেষক আ ক ম যাকারিয়াকে স্মরণ করা হলো আলোকচিত্র, তাঁর লেখা গ্রন্থের প্রদর্শনী ও অতিথিদের স্মৃতিচারণায়। গবেষণায় একুশে পদকপ্রাপ্ত এই প্রত্নতাত্ত্বিক ও সাবেক সচিবের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার এ আয়োজন ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল শ্রেণিকক্ষে। ঢাকার স্থাপত্যবিষয়ক গ্রন্থ প্রণয়ন কমিটি এ স্মরণসভার আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে এ জ্ঞানতাপসের লেখা প্রথম গ্রন্থ ‘গুপিচন্দ্রের সন্ন্যাস’-এর পুনর্মুদ্রণের মোড়কও উন্মোচন করা হয়। গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে রেবন প্রকাশনী।  

স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। আ ক ম যাকারিয়ার স্মৃতিচারণা করে আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘তিনি আজ আমাদের মাঝে নেই। কিন্তু তাঁর লেখা গ্রন্থগুলো আমাদের মাঝে রয়েছে। এই গ্রন্থগুলোই তাঁর জীবনের অস্তিত্ব হিসেবে আজীবন আমাদের মাঝে থাকবে এবং তাঁর সৃষ্ট গবেষণা কর্মগুলোই মানবসভ্যতার অগ্রযাত্রায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। ’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, জগতে কিছু মানুষ আছে যাঁরা যে বয়সেই মৃত্যুবরণ করুন না কেন সেটাকে অকালমৃত্যু মনে হয়। আ ক ম যাকারিয়া তেমনই একজন মানুষ ছিলেন।

বর্তমান প্রজন্মের উচিত তাঁর জীবন থেকে শিক্ষা নেওয়া।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান বলেন, ‘তিনি অত্যন্ত উচ্চমানের একজন পণ্ডিত ও গবেষক ছিলেন। তাঁর লেখা ও সম্পাদনায় প্রাচীন বঙ্গ ও সভ্যতার ইতিহাসের চিত্র ফুটে উঠেছে। সাহিত্যেও তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। ’

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এইচ এম হাবিবুর রহমান, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের প্রথম সচিব আনিসুর রহমান, এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবু সাঈদ এম আহমেদ, জাতীয় জাদুঘরের কিউরেটর নিলু শামসুন নাহার, মাওলানা নুরুদ্দিন ফতেহপুরী এবং প্রয়াত আ ক ম যাকারিয়ার ছেলে মারুফ শমশের যাকারিয়া, মেয়ে ডা. জাকিয়া মাহফুজা হাসান প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কবি আজহার ফরহাদ।


মন্তব্য