kalerkantho


রাজশাহী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

অতিরিক্ত টাকা আদায়সহ বিদেশ গমনেচ্ছুদের পদে পদে হয়রানি

রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



অতিরিক্ত টাকা আদায়সহ বিদেশ গমনেচ্ছুদের

পদে পদে হয়রানি

রাজশাহী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে (টিটসি) বিদেশ গমনেচ্ছু প্রশিক্ষণার্থীদের হয়রানি এবং তাঁদের কাছ থেকে পদে পদে অতিরিক্ত অর্থ আদায়সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে বিদেশ গমনেচ্ছু ব্যক্তিদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম ক্ষোভ ও হতাশা।

কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের কাছে রীতিমতো জিম্মি হয়ে পড়েছেন প্রশিক্ষণার্থীরা। এ অবস্থার শিকার হয়ে অনেকের বিদেশ যেতেও দেরি হচ্ছে। আবার কেউ কেউ হারিয়ে ফেলছেন আগ্রহ। এ ক্ষেত্রে বেশি ভোগান্তিতে পড়ছেন মধ্যপ্রাচ্যে যেতে আগ্রহী নারী প্রশিক্ষণার্থীরা। অনেক নারীর যাওয়াও আটকে গেছে এ কারণে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রশিক্ষণার্থীদের কাছ থেকে ফরমসহ ভর্তি ফি হিসেবে ১২০ টাকার স্থলে আদায় করা হচ্ছে ২৫০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত। কিন্তু ভর্তির কিছুদিন পর বলা হচ্ছে, সরকার নির্ধারিত কোটার চেয়ে বেশি ভর্তি করা হয়ে গেছে। তাই কাউকে কাউকে বাদ দিতে হবে। এ কথা বলে ভর্তি টিকিয়ে রাখার নামে আবারও প্রশিক্ষণার্থীদের জিম্মি করে প্রত্যেকের কাছ থেকে দুই-আড়াই হাজার টাকা আদায় করা হচ্ছে।

পরে সনদ দেওয়ার সময় কোনো অর্থ আদায়ের নিয়ম না থাকলেও ৫০০ থেকে দেড় হাজার টাকা পর্যন্ত দিতে বাধ্য করা হয় প্রশিক্ষণার্থীদের। অনিয়ম করা হয় আবাসনের ক্ষেত্রেও।

এ ছাড়া প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কথা বললেও সেখানে কিছুই শেখানো হয় না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রশিক্ষণার্থীরা জানান, প্রশিক্ষক বলতে গেলে ক্লাসে আসেনই না। তিনি প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে সংশ্লিষ্ট বিষয়ের বই ধরিয়ে দেন। তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ বই পড়ে বোঝার চেষ্টা করেন। কিন্তু যাঁরা পড়তে জানেন না তাঁদের কোনো কিছুই জানা হয় না। ফলে একবার ফেল করে আবারও ভর্তি হতে হয় তাঁদের এবং দ্বিতীয়বারও অতিরিক্ত অর্থ দিতে হয়। একপর্যায়ে বিরক্ত হয়ে কেন্দ্র ছেড়ে যান প্রশিক্ষণার্থীরা।

জানা গেছে, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কর্মসংস্থানের জন্য বিদেশে যাওয়ার আগে তিন দিনের এবং মধ্যপ্রাচ্যগামী নারী গৃহকর্মীদের জন্য এক মাসের কারিগরি প্রশিক্ষণ নিতে হয়। রাজশাহীর লোকজন এই প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন রাজশাহী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে। এ অঞ্চলের চার জেলার বিদেশ গমনেচ্ছুদের এ দুটি কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে রাজশাহী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রেই এসব অভিযোগ পাওয়া গেছে বেশি। তুলনামূলকভাবে রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নিয়ে অভিযোগ কম।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজশাহী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ব্যাপক অনিয়ম হচ্ছে। এখানে হয়রানি ও অনিয়মের শুরুটা করা হয় ভর্তি নিয়ে। এখানে ভর্তি ফি হিসেবে ১২০ টাকার স্থলে সর্বোচ্চ দুই হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়। সূত্র মতে, রাজশাহী টিটিসি ও রাজশাহী মহিলা টিটিসি থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ২০০৪ সাল থেকে গত বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রায় এক লাখ ৬৩ হাজার ৬৭০ নারী-পুরুষ বিদেশে গেছেন। তাঁদের মধ্যে ১০ হাজার ৯৪৭ নারী মধ্যপ্রাচ্যে গেছেন গৃহকর্মী হিসেবে। চলতি বছরেও কয়েক হাজার নারী-পুরুষ প্রশিক্ষণ নিয়েছেন বা এখনো নিচ্ছেন দুই প্রশিক্ষণকেন্দ্র থেকে। কমবেশি তাঁদের সবাই হয়রানি ও অনিয়মের শিকার হন।


মন্তব্য