kalerkantho


ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির সমাবর্তনে শিক্ষামন্ত্রী

মুনাফার উদ্দেশ্যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়কে চলতে দেওয়া হবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকা ও সাভার   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মুনাফার উদ্দেশ্যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়কে চলতে দেওয়া হবে না

গতকাল ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় নিজস্ব ক্যাম্পাসে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ষষ্ঠ সমাবর্তনে কৃতী শিক্ষার্থীদের মেডেল পরিয়ে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ছবি : কালের কণ্ঠ

মুনাফার উদ্দেশ্যে কোনো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে চলতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, ‘যে সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নির্ধারিত শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে, যারা নিজস্ব ক্যাম্পাসে যায়নি, যারা একাধিক ক্যাম্পাস পরিচালনা করছে তাদের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গতকাল বুধবার ঢাকার সাভারে আশুলিয়ায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ডিআইইউ) নিজস্ব ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের ষষ্ঠ সমাবর্তনে সভাপতির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এবারের সমাবর্তনে তিন হাজার ৪৭৩ জন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীকে ডিগ্রি প্রদান করা হয়। এর মধ্যে চারজন শিক্ষার্থী পায় চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক।

সমাবর্তন বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের ভিআইটি ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও চ্যান্সেলর এবং এডুকেশন প্রমোশন সোসাইটি ফর ইন্ডিয়ার সভাপতি ড. জি বিশ্বনাথান। এ ছাড়া বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, ডিআইইউ উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ মাহমুদুল ইসলাম, বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে জ্ঞানচর্চা, গবেষণা ও নতুন জ্ঞান অনুসন্ধান করতে হবে। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নতুন নতুন পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ এবং গুণগত মান বৃদ্ধির জন্য অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। এ জন্য বিষয় বাছাই, শিক্ষাক্রম উন্নয়ন, শিক্ষাদানের পদ্ধতি অব্যাহতভাবে উন্নত ও যুগোপযোগী করতে হবে।

’ তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমানে বেসরকারি ৯৫টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এগুলোর মধ্যে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় নিজস্ব ক্যাম্পাসে যেতে পারেনি। যারা মুনাফার লক্ষ্য নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় চালাতে চায় কিন্তু শিক্ষার্থীদের সুযোগ-সুবিধা ও নির্ধারিত শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমরা সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে পার্থক্য করি না। তারা সকলেই আমাদের সন্তান ও জাতির ভবিষ্যৎ। তাদের সকলের জন্যই আমরা মানসম্মত শিক্ষা এবং সকল সুযোগ নিশ্চিত করতে চাই। ’

নিজস্ব জমিতে স্থায়ী ক্যাম্পাসে পূর্ণোদ্যমে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করায় এবং আইসিটিভিত্তিক তাদের একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনা করায় শিক্ষামন্ত্রী ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তাদের উদ্যোগ অব্যাহত রাখবে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি নিয়মিতভাবে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে এবং নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করছে, যা বৃহত্তর উন্নয়নের দিগন্ত উন্মোচন করবে। এই বিশ্ববিদ্যালয় দেশের আইসিটি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। ডিআইইউ উদ্যোক্তা সৃষ্টির ধারা অব্যাহত রাখলে শিক্ষার্থীরা চাকরি খোঁজার পরিবর্তে নিজেরাই চাকরি দিতে পারবে। ’


মন্তব্য