kalerkantho


শরণার্থীশিবির পরিদর্শনে জাতিসংঘের বিশেষ দূত

নাগরিকত্ব দিলে স্বদেশে ফিরে যেতে চায় রোহিঙ্গারা

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার ও টেকনাফ প্রতিনিধি   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সার্বিক অবস্থা জানতে গতকাল মঙ্গলবার কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেছেন জাতিসংঘের বিশেষ দূত (র‌্যাপোর্টিয়ার) ইয়াংহি লি। এ সময় রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ স্বদেশে তাদের ওপর নির্যাতনের বর্ণনা দেয়।

উখিয়ার বালুখালী শিবিরের অন্তত ২০ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষের সঙ্গে কথা বলেন জাতিসংঘের বিশেষ দূত।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনা অভিযানের সময় সেনাদের ধর্ষণের শিকার রোহিঙ্গা নারী দিল জোহুরা তাঁর প্রতি বর্বরতার কথা শোনান। তিনি বলেন, ‘আমাকে ধরে সেনা সদস্যরা হাত-পা বেঁধে ধান ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর আমি পালিয়ে বাংলাদেশের বালুখালীতে আশ্রয় নিই। ’

জাতিসংঘের বিশেষ দূত বালুখালী রোহিঙ্গা বস্তিতে আশ্রয় নেওয়া লালু মাঝি, সাবের মাঝি ও মো. হারুনের কাছে রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি জানতে চান। তাঁরা বলেন, মিয়ানমারের সেনারা মায়ের সামনে মেয়েকে এবং মেয়ের সামনে মাকে ধর্ষণ করেছে। এমনকি তারা মা-বাবা ও আত্মীয়স্বজনের ধরে নিয়ে গুলি করে হত্যা করেছে। এ ছাড়া তাঁরা জাতিসংঘের বিশেষ দূতকে জানিয়েছেন, মিয়ানমারে তাঁদের নাগরিকত্ব না দিলে এবং চলাচলের অবাধ সুযোগ-সুবিধা না দিলে তাঁরা ফিরতে চান না।

জাতিসংঘের বিশেষ দূত ইয়াংহি লি ঢাকা থেকে বিমানে কক্সবাজার যান।

সেখান থেকে দুপুর সোয়া ১টার দিকে তিনি উখিয়া উপজেলার বালুখালীতে নতুন আসা রোহিঙ্গাদের বস্তি এলাকায় যান। রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে তিনি বিকেল ৪টায় বালুখালী বস্তি এলাকা ত্যাগ করেন।

এ সময় তাঁর সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব বাকী বিল্লাহ, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) জাতীয় প্রজেক্ট অফিসার সৈকত বিশ্বাসসহ স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন শেষে ইয়াংহি লি কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করেন।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন বৈঠক করার বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আর কিছু জানাননি তিনি।

আজ বুধবার টেকনাফের লেদা ও বৃহস্পতিবার উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শন করারও কথা রয়েছে ইয়াংহি লির।

জানা গেছে, বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ওপর একটি প্রতিবেদন তৈরি করতে চায় জাতিসংঘ। এখানকার পরিস্থিতি তুলে ধরে সমস্যা সমাধানে সুপারিশও করবে সংস্থাটি।   ইয়াংহি লি কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করার পর ঢাকায় ফিরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে।


মন্তব্য