kalerkantho


বিশ্বব্যাংক দুটি গাড়ি হস্তান্তর করেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ কান্ট্রি অফিস দুজন সাবেক কর্মকর্তার ব্যবহৃত দুটি গাড়ি শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরে হস্তান্তর করেছে। বিশ্বব্যাংকের বিরুদ্ধে শুল্কমুক্ত সুবিধায় আনা ১৬টি গাড়ি অপব্যবহারের অভিযোগ আনার পাঁচ দিন পর গতকাল সোমবার এ দুটি গাড়ি জমা দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান কালের কণ্ঠকে জানান, শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহারের অভিযোগ সামনে রেখে যাচাই-বাছাই করতে সম্প্রতি বিশ্বব্যাংকের ১৬টি গাড়ি তলব করা হয়। শুল্ক গোয়েন্দাদের এই তলবের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল সকাল ১১টায় বিশ্বব্যাংকের একজন কর্মকর্তা টয়োটা আরএভি-ফোর এসইউভি এবং একটি সেডান গাড়ি জমা দেন। গাড়ি দুটির ব্যবহারকারী ছিলেন ফিনল্যান্ডের নাগরিক মিজ মির্ভা তুলিয়া ও ভারতীয় মিজ মৃদুলা সিং। তিনি বলেন, ‘গাড়ি জমা দেওয়ার এই ঘটনায় প্রমাণ হলো যে আমাদের সন্দেহ সঠিক ছিল। বিশ্বব্যাংকের কর্মকর্তারা শুল্ক ফাঁকি দিয়েছেন। কারণ শুল্ক ফাঁকি না দিলে কেন তাঁরা গাড়িগুলো ফেরত দিলেন?’

শুল্ক গোয়েন্দাদের তৈরি প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘দেশে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক বিদেশি সংস্থায় কর্মরত প্রিভিলেজড পারসনদের শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহারসংক্রান্ত চলমান তদন্তের প্রয়োজনে শুল্ক গোয়েন্দা সদর দপ্তর থেকে বিশ্বব্যাংক বরাবর এ ধরনের ১৬টি গাড়ির তথ্য চেয়ে গত ১৫ জানুয়ারি একটি চিঠি দেওয়া হয় এবং চিঠির জবাব দিতে এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকায় বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশ দপ্তর থেকে গত ১৯ ফেব্রুয়ারিতে উচ্চপর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদল শুল্ক গোয়েন্দা দপ্তরে উপস্থিত হয়ে তাদের পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করে। এই আলোচনার সূত্রে দেশে প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে বাংলাদেশে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফ্যান স্বাক্ষরিত পত্র মারফত বিশ্বব্যাংকের পক্ষে গাড়ি দুটি গতকাল সকালে শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ’

হস্তান্তর করা গাড়ি দুটি শুল্ক গোয়েন্দা সদর দপ্তরের হেফাজতে রয়েছে।

কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে গাড়ি দুটির বিষয়ে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান শুল্ক গোয়েন্দা মহাপরিচালক।

আইএলও কর্মকর্তার শুল্কমুক্ত সুবিধার গাড়ি হস্তান্তর : আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) বাংলাদেশ কান্ট্রি অফিস এর আগে গত রবিবার তাদের সাবেক এক কর্মকর্তার ব্যবহৃত সাদা রঙের টয়োটা সেডান গাড়ি গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করে। গাড়িটির ব্যবহারকারী ছিলেন ফ্রান্সিস দিলীপ বসন্ত ডি সিলভা। তিনি ২০০৮ সালের ১৭ জুন থেকে ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত আইএলও বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ হিসেবে কর্মরত ছিলেন।


মন্তব্য