kalerkantho


একুশে ফেব্রুয়ারি

পলাশে ২১ শহীদ মিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক, নরসিংদী   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে নরসিংদীর পলাশ উপজেলা প্রশাসন ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে। আজ একুশে ফেব্রুয়ারি উপজেলার ২১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২১টি নতুন শহীদ মিনার উদ্বোধন করা হবে।

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে একুশে ফেব্রুয়ারির চেতনা ছড়িয়ে দিতে এবং দেশাত্মবোধ জাগানোর লক্ষ্যেই প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে এই শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৬৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাত্র ১১টিতে শহীদ মিনার রয়েছে। ফলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসসহ জাতীয় দিবসগুলো অধিকাংশ বিদ্যালয়েই পালন করা হয় না। এতে বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা জাতীয় দিবসগুলো সম্পর্কে অজ্ঞই থেকে যাচ্ছে।

বিষয়টি উপলব্ধি করে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। এরই অংশ হিসেবে প্রথম দফায় উপজেলার ২১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ঘোড়াশাল পৌরসভা ও জিনারদী ইউনিয়নে তিনটি করে ছয়টি এবং চরসিন্ধুর, ডাঙ্গা ও গজারিয়া ইউনিয়নে পাঁচটি করে ১৫টি শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে।

উপজেলার খানেপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী রেদোয়ান ইসলাম বলে, ‘আগে আমরা একুশে ফেব্রুয়ারিতে খুব সকালে ঘুম থেকে উঠে উপজেলা পরিষদের শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতাম। এবার আমাদের স্কুলে শহীদ মিনার হওয়ায় স্কুলেই তাঁদের শ্রদ্ধা জানাতে পারব।

এতে আমরা খুবই আনন্দিত। ’ উপজেলার কাঙ্গালপাড়ার পলাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পূজা রানী ধর বলে, ‘আমাদের বিদ্যালয়ে আগে শহীদ মিনার ছিল না। তাই এত দিন আমরা একুশে ফেব্রুয়ারিতে কলাগাছ দিয়ে অস্থায়ীভাবে শহীদ মিনার বানিয়ে ফুল দিতাম। এবার স্কুলে স্থায়ী শহীদ মিনারে আমরা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাব। ’

পলাশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার বলেন, ‘বিভিন্ন বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে জাতীয় দিবসগুলো সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের অজ্ঞতা আমাকে ব্যথিত করে। তাই বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার স্থাপন একদিকে যেমন শিক্ষার্থীদের মধ্যে একুশে ফেব্রুয়ারির চেতনা ছড়িয়ে দেবে, তেমনি জাতীয় দিবসগুলোর অজ্ঞতাও দূর করবে বলে আমার বিশ্বাস। ’


মন্তব্য