kalerkantho


সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ

ঢাকা অ্যাপারেল সামিট আগামী শনিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশের পোশাক খাতে টেকসই প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করতে ‘টুগেদার ফর বেটার টুমোরো’ শীর্ষক থিম নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকা অ্যাপারেল সামিট-২০১৭-এর আয়োজন করতে যাচ্ছে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। আগামী শনিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক দিনের এই সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন।

গতকাল রবিবার সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিজিএমইএ কার্যালয়ের অ্যাপারেল ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএর সভাপতি বলেন, অ্যাপারেল সামিটের মূল লক্ষ্য হচ্ছে সরকার, বেসরকারি খাত, ব্র্যান্ড, শ্রমিক সংগঠনসহ পোশাকশিল্পের সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নিয়ে বাংলাদেশের পোশাক খাতে টেকসই প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করা। তিনি জানান, অ্যাপারেল সামিটে উন্নত বাংলাদেশের জন্য ব্যবসায় নীতি ও পরিবেশ, টেকসই প্রবৃদ্ধির জন্য দায়িত্বশীল উত্স ও সহযোগিতা, পোশাকশিল্পের রূপান্তর ও ভবিষ্যতে করণীয়—এই তিনটি বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এসব সেমিনারে বক্তব্য দেবেন বাণিজ্যমন্ত্রী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, বাণিজ্যসচিব, ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত, নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত জোহান ফ্রিসেলসহ আরো অনেকে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএর জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ফারুক হাসান, মঈনুদ্দিন আহমেদ, এস এম মান্নান, মোহাম্মদ নাছির ও মাহমুদ হাসান খান, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবি) চেয়ারম্যান এম এ সবুর, বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহিউদ্দিন রুবেল। ঢাকা অ্যাপারেল সামিট আয়োজনে বিজিএমইএকে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ অ্যাপারেল এক্সচেঞ্জ। টাইটেল স্পন্সর হিসেবে আছে ইউসিবি।

বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘বিদেশের পত্রিকায় প্রপাগান্ডা নয়, দেশে এসে দেখুন, এখানে শ্রমিকদের কোনো সমস্যা হচ্ছে কি না? আর এসব প্রপাগান্ডায় ঢাকা অ্যাপারেল সামিটের কোনো প্রভাব ফেলবে না। এ ছাড়া আমরা সবাইকে দাওয়াত দেব, কেউ আসবেন, আবার কেউ আসবেন না।


মন্তব্য